ঠাকুরগাঁওয়ে চাচীর সাথে ভাতিজা আপত্তিকর অবস্থায় আটক

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে চাচির সাথে ভাতিজাকে বিছানায় অসামাাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার সময় হাতে নাতে আটক করেছে মিঠুন (১৪) নামে ওই মহিলার ছেলে ও স্থানীয় লোকজন। ক্ষমতার বলে এ ঘটনা দুইদিন ধরে ধামাচাপা দিয়ে টাকার বিনিময়ে মীমাংসায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন দুওসুও ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পান্না।

গত শুক্রবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দুওসুও ইউনিয়নের ছাগলডাঙ্গী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

চাচির নাম নাম লাকি বেগম (৪০)। সে দুই সন্তানের জননী এবং ছাগলডাঙ্গী গ্রামের ইদ্রিশ আলীর স্ত্রী। ভাতিজার নাম মাজেদুর রহমান (৩৫)। সে একই এলাকার মৃত সফিজ উদ্দীনের লেদুর ছেলে।

ইউপি সদস্য পান্না জানায়, স্থানীয় ভাবে একাধিকবার বোসে মীমাংসা করার চেষ্টা করেছি। ইউপি সদস্যকে স্থানীয় প্রশাসনের নিকট তুলে দেওয়ার কথা বললে বিষয়টি এড়িয়ে যায় এবং বলেন আমি শালিসে মাজেদুরের দুই ভাইয়ের নিকট সাদা কাগজে স্বাক্ষর করে নিয়েছি।

তবে স্থানীয় লোকজন, মিঠুন ও তার ভাই লিটনের দাবী ইউপি সদস্য পান্না বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য মাজেদুরকে লুকিয়ে রেখেছে।

মিঠুন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ভাতিজা মাজেদুর রহমান ও চাচি লাকি বেগমের অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল।গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘরে বসে টেলিভিশন দেখার সময় অন্য একটি ঘরে মাজেদুর গোপনে ঢুকে লাকি বেগমের সাথে অসামাজিক কার্যকলাপে জড়িত হলে মিঠুন টের পেয়ে স্থানীয় লোকজনসহ তাদেরকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করে।

এ বিষয়ে ৫নং দুওসুও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য আমাকে জানিয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত দু:খ জনক। ইউপি সদস্যকে স্থানীয় থানায় অবগত করার জন্য পরামর্শ দিয়েছি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান মুঠোফোনে জানান, এমন কোন বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী থানা কেউ অভিযোগ প্রদান করেননি। অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.