স্ত্রীর টেক্সট মেসেজ উপেক্ষা করায় বিয়ে বিচ্ছেদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তাইওয়ানে স্ত্রীর পাঠানোর মোবাইল বার্তা উপেক্ষা করায় ওই দম্পতিকে বিচ্ছেদের অনুমতি দিয়েছে আদালত। টেক্মট মেসেজ পড়া হয়েছে কি না, সেই ইন্ডিকেটর ব্যবহার করে ওই স্ত্রী প্রমাণ করতে পেরেছেন যে, তার স্বামী তাকে উপেক্ষা করছিলেন।ওই বিশেষ ধরনের অ্যাপটির সাহায্যে দেখা গেছে তার স্বামী মেসেজগুলো খুলেছিলেন, কিন্তু কোনটারই উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করেননি। এ মাসের শুরুতে তাই আদালতের বিচারক স্ত্রীর অনুকূলেই রায় দিয়েছেন।টেক্মট মেসেজ পড়া হয়েছে কি না, যাচাইয়ের সেই পদ্ধতিকে বলে ব্লু-টিকিং। যা থেকে বোঝা যায় স্মার্টফোনে পাঠানো কোনও বার্তা পড়া হয়েছে কি না। হোয়াটসঅ্যাপ বা লাইনের মতো সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ থেকে এসেছে ব্লু-টিকিংয়ের ধারণা।তাইওয়ানের শিনচু ডিস্ট্রিক্টের পারিবারিক আদালতের বিচারক বলেন, টেক্সট মেসেজগুলো যেভাবে উপেক্ষিত হয়েছে তাতে স্পষ্ট এই বিয়ে আর মেরামত করার জায়গায় নেই।লিন পদবীধারী স্ত্রী ছয় মাস ধরে তার স্বামীকে বহু বার্তা পাঠিয়ে ছিলেন। একবার গাড়ি দুর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরও বার্তা পাঠিয়ে ছিলেন। একটা মেসেজে তিনি এও লেখেন যে, তাকে ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করা হয়েছে এবং কেন তার স্বামী কোনও বার্তার জবাব দিচ্ছেন না? তার স্বামী অবশ্য একবার তাকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন।তবে তারপর তিনি আবার স্ত্রীর পাঠানো বার্তাগুলো উপেক্ষা করতে শুরু করেন। ওই দম্পতি ২০১২ সাল থেকে বিবাহিত ছিলেন। স্বামী অবশ্য বিবাহ বিচ্ছেদের এই রায়ের বিরুদ্ধে আদালতে আপিলের সুযোগ পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!