সাপের কামড় রোগীদের  চিকিৎসা এখন সরাসরি কুমিল্লা সদর হাসপাতালে

শরীফ আহমেদ মজুমদার,কুমিল্লা প্রতিনিধি:
কুমিল্লায় সাপের কামড় রোগীদের অন্য কোন হাসপাতাল ও ওঝা’র কাছে না নিয়ে সরাসরি কুমিল্লা জেনারেল (সদর) হাসপাতালে নিয়ে আসার আহবান জানানো হয়েছে। এতে করে রোগীর বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কেন না সরকারি ভাবে কুমিলার’র কোন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সাপের কামড় রোগীদের চিকিৎসা করা হয়। কেন রোগীকে কি ধরণের সাপে কামড় দিয়েছে তা আগে শনাক্ত করতে হবে। যদি বিষাক্ত সাপে কামড় দেয় তাহলে এন্টি ভেনম ব্যবহার করা হয়। এ ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। যা কারণে ডাক্তরা এ ধরণের ঝুঁকি সব সময় প্রস্ততি নয়। যে কারণে বর্তমানে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতাল
এ বিষয়ে কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মুজিবুর রহমান বলেন, সাপের কামড়ের চিকিৎসা করার জন্য বিশেষজ্ঞ ডাক্তার প্রয়োজন। অনেকে ভয়ে ইনজেকশন পুশ করে না। বর্তমানে কুমিল্লায় শুধু মাত্র সদর হাসপাতালে সাপে কামড়ের চিকিৎসা দেওয়া হয়। ইতিমধ্যে আমরা সিভিল সার্জন ফেসবুক পেইজে বিজ্ঞাপন দিয়েছি এবং উপজেলা পর্যায়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নির্দেশনা রয়েছে সাপে কামড়ের রোগীদের সরাসরি সদর হাসপাতালে পাঠানো জন্য।
একটা সময় ছিল যখন বিষাক্ত সাপের কামড় মানে ছিল নির্ঘাত মৃত্যু; কিন্তু বিজ্ঞানের অগ্রগতির সাথে সাথে আমরা সাপের কামড়ে মানুষের মৃত্যুহার অনেকাংশে কমিয়ে এনেছি।কিছুদিন পূর্বেও সাপের কামড়ের একমাত্র চিকিৎসা ছিল ঝাড়ফুঁক ওঝা এবং দুধ ও গোবর থেকে দূরে থাকা। সময়ের সাথে সাথে আবিষ্কার হয়েছে এন্টি ভেনম; সাপের কামড়ে এখন বেশী মানুষ মরে না । সাপের বিষ নিষ্ক্রিয় করার ঔষধ জেনারেল (সদর) হাসপাতালে রয়েছে।
সম্প্রতি কুমিল্লা ব্রাহ্মণপাড়ার ও আদর্শ সদরে সচেতনার অভাবের কারণে  ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী কেয়া মনি ও ছাত্রদল সভাপতি রিয়াদের অকাল মৃুত্য হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!