রাজাপুরে সোহাগ ক্লিনিকের অপচিকিৎসা ও নিন্মমানের ওষুধ বিক্রির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

ঝালকাঠি সংবাদদাতা : ঝালকাঠির রাজাপুরের সোহাগ ক্লিনিক ও ইসলামিয়া ফার্মেসীর বিরুদ্ধে নিন্মমানের ওষুধ বিক্রির অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ওষুধ ব্যবসায়ীরা। একটি লাইসেন্স দিয়ে সাতটি ফার্মেসী চালানোরও অভিযোগ রয়েছে ক্লিনিক মালিক আহসান হাবিব সোহাগের বিরুদ্ধে। এছাড়াও ১০ শয্যার অনুমদিত ক্লিনিকে অবৈধভাবে একশ’ শয্যা ব্যবহার করছেন তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন রাজাপুরের ওষুধ ব্যবসায়ীদের সংগঠন কেমিষ্টস্ অ্যান্ড ড্রাগিষ্টস সমিতির নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান খান। লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, রাজাপুরের আহসান হাবিব সোহাগ একটি ক্লিনিক ও সাতটি ফার্মেসীর মালিক। তাঁর ফার্মেসীগুলোতে নিম্মমানের ওষুধ বিক্রি করা হচ্ছে। নিম্মমানের এসব ওষুধ তাঁর ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের ব্যবহার করতে বাধ্য করা হয়। অখ্যাত কোম্পানির ওষুধ বিক্রি করে তিনি রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন। অপচিকিৎসার কারণে তাঁর ক্লিনিকটি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে সে পুনরায় ক্লিনিকটি চালু করে। তাঁর ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে এসে একাধিক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। অপচিকিৎসার শিকার এসব রোগীর স্বজনরা আইনের আশ্রয় নেয়। গত ৩ মে ভুক্তভোগী এক রোগীর স্বজনের মামলায় ক্লিনিকের মালিক আহসান হাবিব সোহাগ ও দুই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সোহাগ ক্লিনিকের কর্মচারীরা আজ বৃহস্পতিবার মামলার বাদীর বিরুদ্ধে মানববন্ধন করে। এ মানববন্ধনে বক্তারা রাজাপুরের ওষুধ ব্যবসায়ীদের নিয়ে নানা কটূক্তিমূলক বক্তব্য দেন। এ ঘটনায় সোহাগের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য ও অপপ্রচারের অভিযোগ করেন রাজাপুরের ওষুধ ব্যবসায়ীরা। তাঁরা সংবাদ সম্মেলনে ক্লিনিক মালিক আহসান হাবিব সোহাগের বিচার দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, সোহাগের অবৈধ ব্যবসা পরিচালনা সম্পর্কে বাংলাদেশ কেমিষ্টস্ ও ড্রাগিষ্টস সমিতির বরিশাল, ঝালকাঠি ও রাজাপুর শাখা সতর্ক করলেও তিনি কোন নিয়ম-নীতি মানছেন না। সংগঠনের নিয়ম না মেনে তিনি অবৈধভাবে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর ক্লিনিক ও অবৈধ ওষুধ ব্যবসা বন্ধের দাবি জানান সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ওষুধ ব্যবসায়ীরা। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কেমিষ্টস্ অ্যান্ড ড্রাগিষ্টস সমিতি ঝালকাঠি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মেহেদী আহম্মেদ, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক ও রাজাপুর শাখার সভাপতি আবদুস ছত্তার। সোহাগ ক্লিনিকের মালিক আহসান হাবিব সোহাগের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!