নেতাদের ‘খাই খাই’ ছাড়তে বললেন : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে খাই খাই মনোভাব আছে মন্তব্য করে এই মনোভাব পরিহার করার আহ্বান জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘কর্মীদের মধ্যে খাই খাই মনোভাব নেই, অথচ নেতাদের মধ্যে রয়েছে।’
রবিবার খুলনা জেলা স্টেডিয়াম মাঠে খুলনা বিভাগের ১০ জেলার প্রায় ২৫ হাজার নেতা-কর্মী নিয়ে অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।
নেতাদেরকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নিজেদের পকেট ভারী করার জন্য খারাপ লোকদের দলে ভেড়াবেন না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী ও সাম্প্রদায়িক কোন লোককে দলে ঠাঁই দেবেন না।’
‘যারা অপকর্ম করে তাদের সংশোধন করুন অন্যথায় বর্জন করুন।… ক্ষমতায় থাকলে অনেকে দাপট দেখান, ক্ষমতা না থাকলে দাপট চূর্ণবিচুর্ণ হয়ে যাবে’-নেতাদের বলেন কাদের। প্রতিনিধি সভায় নেতা-কর্মীদের বেশ কিছু নির্দেশনা দেন কাদের। এগুলো হলো, প্রত্যেক নির্বাচন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের সমর্থকদের নিয়ে কমিটি গঠন, গ্রামে গ্রামে আওয়ামী লীগের সফলতা তুলে ধরে উঠান বৈঠক, জেলায় কোথায় আওয়ামী লীগের অফিস আছে আর কোথায় নেই তার তালিকা কেন্দ্রে প্রেরণ এবং অসুস্থ ও অসহায় আওয়ামী লীগ কর্মীদের তালিকা তৈরি।
ঈদের পর বিএনপির আন্দোলনের ঘোষণা নিয়েও কথা বলেন কাদের। তিনি বলেন, ‘ঈদ চলে গেছে আন্দোলন কোথায়?… আন্দোলনের কথা শুনতে শুনতে তো আট বছর পার হয়ে গেল, আর কবে বিএনপির আন্দোলন হবে?’। পরে নিজেই তিনি বলেন, ‘আন্দোলন ইস্যুতে বিএনপির মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসবে না।
রাজনীতিতে বিএনপির কোনো ভবিষ্যত নেই বলে মনে করেন কাদের। বলেন, ‘যে দল আন্দোলনে বিজয়ী হতে পারে না, সে দল কোনো দিন নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারে না। বিএনপির আন্দোলনের ডাক শুধু আষাঢ়ের তর্জন-গর্জন।’
আওয়ামী লীগ নির্বাচনে ভয় পায়- বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের দল তারা কখনো নির্বাচনে ভয় পায় না।’ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে বলেও আশার কথা বলেন তিনি।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্জের সভাপতিত্বে এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল হোসেনের পরিচলনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন শেখ হেলাল উদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মসিউর রহমান, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান জোয়ার্দ্দার, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, তালুকদার আব্দুল খালেক, মোজাম্মেল হক, মুনসুর আহমেদ, আব্দুল হাই, মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ প্রমুখ এ সময় বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!