নাঙ্গলকোটে গলিত লাশের ঘটনায় আরো দুই আসামি কুমিল্লায় গ্রেফতার আদালতে স্বীকারোক্তি।

নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি: রোববার নাঙ্গলকোট থানা ও সদর দক্ষিন থানা পুলিশের একটি দল কুমিল্লা নগরির টমছম ব্রীজ এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই আসামিকে আটক করে।আসামিরা কুমিল্লার আদালতে হত্যার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারা জবানবন্ধি দিয়েছেন।আটককৃতরা হলেন,উপজেলার রায়কোট দক্ষিন ইউনিয়নের শামিরিখিল গ্রামের নুরে আলমের ছেলে শাহীনঅপর আসামি ছুপুয়া গ্রামের মাহবুল হকের ছেলে ফারুক।এর আগে নিহতের স্ত্রী সাজেদা বেগম ৯ ই নভেম্বার কুমিল্লার আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবান বন্ধি দিয়েছেন।উল্লেখ্য নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট উত্তর ইউপির ছুপুয়া গ্রামের খোরশেদ আলম (৫৫) নামের এক ব্যক্তি গত ২নভেম্বার বাড়ী থেকে নিখোঁজ হয়। এলাকাবাসী বিষয়টি নিয়ে নিখোঁজের পরিবারকে সন্দেহ করে। নিখোঁজের ৫ দিন পর,গত ৭ নভেম্বার মঙ্গলবার আমেরিকা প্রবাসির পরিত্যাক্ত বাড়ী হইতে মাটি চাপাঁ দেওয়া নিহতের গলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।নিহতের মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে ৯ ই নভেম্বার বুধবার বিকেলে তাঁর মরদেহ নিজ গ্রাম ছুপুয়া নিয়ে আসলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যে অবতারনা হয়। গ্রামবাসি নিহতের মরদেহ কোন কবরস্হান দাফন না করে।তাঁর বাড়ীর আঙ্গিনায় দাফন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!