নাঙ্গলকোটে খানাখন্দে দুই কিলোমিটার সড়ক জনদূর্ভোগ চরমে

নাঙ্গলকোট(কুমিল্লা)প্রতিনিধি : কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার মক্রবপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত গ্রাম কনকইজ, এক সময় লাকসাম উপজেলার অন্তর্গত ছিলো এ গ্রাম।এ গ্রামটি নাঙ্গলকোট উপজেলা গঠিত হলে নাঙ্গলকোট ইউনিয়নের সাথে যুক্ত হয়। নাঙ্গলকোট পৌরসভা গঠন করা হলে গ্রামটিকে মক্রবপুর ইউনিয়নের স্থানান্তর করে। উপজেলা বদল হয় ইউনিয়ন বদল হয় কিন্তু তাদের ভাগ্য বদল হয়নি গ্রামের বাসিন্দাদের স্বাধীনতার ৫১ বছরেও গ্রামটির তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি নির্বাচন আসলে জনপ্রতিনিধিরা প্রতিশ্রুতি দেয়।গ্রামবাসী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা এলজিএডি অফিসে আবেদন করেন,কাজের কাজ কিছু হয়নি। মাত্র ২ কিলোমিটার কাচাঁ সড়ক পাকা করনের দাবী এলাকাবাসীর। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,উপজেলার নাঙ্গলকোট মাহিনী সড়কের কনকইজ এবাদত খানা থেকে শুরু হয়ে শ্রীফলিয়া নাঙ্গলকোট সড়কের ভূলুয়াপাড়া গ্রামের সাথে মিলিত হয়। কাচা সড়কটি কাদামগ্ন শতশত খানাখন্দভরা সড়কটি পাকাকরনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, উপজেলা চেয়ারম্যান,ও প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানান।
এবিষয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাশেম,কুয়েত প্রবাসী ইউনূস বলেন,তাদের গ্রামের কাঁচা রাস্তাটি স্বাধীনতার ৫১ বছরেও সংস্থার হয়নি,সড়কটি সংস্থারের জন্য উপজেলা এলজিইডি প্রোকৌশলী ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এর লিখিত আবেদন করেন।নির্বাচন আসলে জনপ্রতিনিধিরা প্রতিশ্রুতি দেয় নির্বাচন গেলে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়না রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, উপজেলা চেয়ারম্যান,ও প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানান। এনজিও কমী হুমায়ন কবির,রিক্সা চালক আলম,ভ্রাম্যমান হকার রুবেল বলেন,কাদামাটির এ রাস্তায় যানবাহন নিয়ে চলাচল করতে কষ্ট হয়।জীবিকার তাগিদে এ গ্রামে আসতে প্রায় সময় দূর্ঘটনায় পড়ি গাড়ির চাকা নষ্ট হয়,স্কেল ভেঙে যায়। এ বিষয় গতকাল রোববার নাঙ্গলকোট উপজেলা এলজিইডি প্রোকৌশলী আবদুল্লাহ আল মামুন মুঠোফোনে বলেন,এ সড়কটি স্টিমেট অনেক আগে দেওয়া আছে শীগ্রই টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ শুরু করা হবে।

error: Content is protected !!