নতুন কর ব্যবস্থা চালূ ভারতে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রায় দেড় যুগের চড়াই-উতরাই পেরিয়ে গন্তব্যে পৌঁছালো ‘এক দেশ, এক কর’ জিএসটি ব্যবস্থা। শুক্রবার ঠিক রাত ১২টায় সংসদের বিশেষ অধিবেশনে ঐতিহাসিক সেন্ট্রাল হলে জিএসটি উদ্বোধন করেন ভারতের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘স্বাধীন ভারতে পরোক্ষ কর-এ এত বড় সংস্কার কখনও হয়নি। এই রাত তাই ঐতিহাসিক। যার উদ্‌যাপন এমন ঐতিহাসিক জায়গায় ছাড়া মানানসই হতও না। এই মুহূর্ত কেন্দ্র, সমস্ত রাজ্য, সব রাজনৈতিক দল এবং এ নিয়ে এর আগে কাজ করা প্রতিটি সরকারের সম্মিলিত প্রাপ্তি।’
যদিও জিএসটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আসেনি কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস-সহ অধিকাংশ বিরোধী দল। কিন্তু তা বলে আয়োজনে ত্রুটি রাখেনি কেন্দ্র। আলোয় সেজেছে সংসদ ভবন। অনুষ্ঠানে এসেছেন রতন টাটা। ছিলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর উর্জিত পটেলও। অনুষ্ঠানে অবশ্য প্রতিনিধি পাঠিয়েছেন নীতীশ কুমার। এসেছেন শারদ পওয়ার। শেষ মুহূর্তে মত বদলে এসেছে সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ শিবিরও।
অনুষ্ঠানে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, অর্থমন্ত্রী হিসেবে জিএসটি-র কর্মযজ্ঞে দীর্ঘ দিন সামিল ছিলাম। উল্লেখ করলেন জিএসটি পরিষদে যাবতীয় সিদ্ধান্ত ঐকমত্যের ভিত্তিতে হওয়ার কথা। তুলে ধরা হয় জিএসটি-র কারণে সব রাজ্যের সমৃদ্ধির সম্ভাবনাও।
সমস্ত রাজ্য ও রাজনৈতিক দলের সম্মতি নিয়ে এক দেশ এক কর ব্যবস্থা চালু করতে সময় লেগেছে ১৭ বছর। কিন্তু এসব সত্ত্বেও জিএসটি চালুর দিনে মোদি-সরকারের জন্য অস্বস্তি অপেক্ষা করেছে রাজনীতির চৌহদ্দির বাইরেও। দেশ জুড়ে বস্ত্র ব্যবসায়ীরা ধর্মঘটে। নতুন কর- ব্যবস্থা নিয়ে বিস্তর ধোঁয়াশা শিল্পমহলে।
মোদি অবশ্য আশ্বাস দিয়ে জানালেন, জিএসটি আসলে হবে ‘গুড অ্যান্ড সিম্পল ট্যাক্স’। শুরুতে সামান্য হোঁচট খেতে হলেও শেষ পর্যন্ত কঠিন হবে না মানিয়ে নেওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!