1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০৫:৫১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

জামালপুর-বকশীগঞ্জ সড়কের কয়েক হাজার গাছ নিধন

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

জামালপুর সংবাদদাতা : জামালপুর-বকশীগঞ্জ সড়ক প্রশস্ত করার জন্য নির্বিচারে কেটে ফেলা হচ্ছে কয়েক হাজার প্রাচীন গাছ। এ পর্যন্ত প্রায় তিন হাজার গাছ কাটা হয়েছে।

ঠিকাদারের লোকজন জানান, সড়কের দুই পাশের অন্তত সাড়ে তিন হাজার গাছ কাটার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে তাদের।

নির্বিচারে না কেটে বহু গাছ রেখেই রাস্তার উন্নয়নকাজের পরিকল্পনা করা যেত বলছেন পরিবেশবাদীরা। তারা বলেন, এসব গাছ রেখেই সড়কটি প্রশস্ত করা সম্ভব। পরিকল্পনা ছাড়া এভাবে নির্বিচারে গাছ কাটা হলে এর বিরূপ প্রভাব পড়বে পরিবেশের ওপর।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করলে সওজের জামালপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঢাকার নির্বাহী বৃক্ষ পালন বিড বলতে পারেনি এ রাস্তার কতগুলো গাছ কাটার জন্য বিক্রি করা হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জামালপুর-বকশীগঞ্জ ও কামালপুর সড়কের বেনুয়ারচর, ঝগড়ারচর ও ফুলকারচর এলাকায় গাছ কাটছেন শ্রমিকরা। ইতোমধ্যে নিলক্ষিয়া, টানা ব্রিজ, বকশীগঞ্জ, বাট্টাজোর নতুন বাজার, কামালপুর, পারামরামপুর এলাকার রাস্তার দুই পাশে থাকা গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, কড়ই, আম, জাম, মেহগনী, শিমুল, কাঁঠাল, বরই, বট, আকাশমনি। এসব গাছের বেশির ভাগ ৩০ থেকে ৫০ বছরের পুরনো। গাছগুলো কেটে ফেলায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জামালপুর সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জামালপুর-শেরপুর সড়কের নন্দিরবাজার মোড় থেকে জামালপুরের বকশীগঞ্জ-ধানুয়াকামালপুর হয়ে রৗমারি পর্যন্ত ৫৯ কিলোমিটার সড়কটি ২৪ ফুট প্রশস্ত করা হবে। সম্প্রতি ঢাকার মিরপুর এলাকার নির্বাহী বৃক্ষপালনবিদের (সওজ) কার্যালয় থেকে ৫৬টি লটের গাছ বিক্রির দরপত্র আহ্বান করা হয়। মেসার্স দিদার এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান গাছগুলো কিনে নেয়। ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাব ঠিকাদার ঝগড়ারচর বাজার এলাকার আব্দুস ছালাম নামের এক কাঠ ব্যবসায়ী গাছগুলো কাটছেন।
ছোটকাল থেকে এসব গাছ দেখে আসছিলেন ফুলকারচর গ্রামের বৃদ্ধ মজিবর মিয়া। তিনি বলেন, ‘গাছগুলো অনেক প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকেও আমাদের রক্ষা করত। কৃষকরা গাছতলায় বসে বিশ্রাম নিত। আমাদের শীতল ছায়া দিত। ’
বাট্টাজোর নতুন বাজার এলাকার ফারুক মিয়া আক্ষেপ করে বলেন, ‘গাছগুলো রেখেই রাস্তার কাজ করা সম্ভব ছিল। কিন্তু কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বলি হলো কয়েক যুগ ধরে বেড়ে ওঠা গাছগুলো। সবই এখন শুধু স্মৃতি।’

সড়কে গাছ রেখে উন্নয়ন কাজের পরিকল্পনা করা উচিত ছিল বলে সম্প্রতি জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় মত দিয়েছিলেন জামালপুরের পরিবেশ রক্ষা আন্দোলনের সভাপতি জাহাঙ্গীর সেলিম। সে কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ওই সড়কের এখনো কাজই শুরু হয়নি অথচ কয়েক মাস ধরে সড়কের দুই পাশের গাছ কেটে সাবাড় করা হচ্ছে। ওই সড়কের দুই পাশে শতবর্ষী গাছও রয়েছে। আমাদের উন্নয়ন অবশ্যই দরকার, তবে পরিবেশকে হুমকিতে ফেলে নয়।’

নির্বিচারে গাছ কাটার কারণে পরিবেশ বিনষ্ট ও জীববৈচিত্র্য মারাত্মক হুমকিতে পড়বে বলে আশঙ্কা করেন জাহাঙ্গীর সেলিম। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে যেখানে সারা দেশে স্বাধীনতাযুদ্ধে নিহত শহীদদের স্মরণে ৩০ লাখ গাছ লাগানো হচ্ছে, সেখানে জামালপুরে গাছ নিধনের মহোৎসব চলছে।

সড়ক ও জনপথের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঢাকার নির্বাহী বৃক্ষ পালন বিড অফিস থেকে দরপত্রের মাধ্যমে ওই রাস্তার গাছ বিক্রি করা হয়।

কতগুলো গাছ কাটার দরপত্র হয়েছে জানতে চাইলে তা বলতে পারেননি ওই নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঢাকা বিভাগের নির্বাহী বৃক্ষ পালন বিড কামাল উদ্দিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!