চিকুনগুনিয়া আতঙ্কে কুমিল্লা মশা নিধনে চলছে অভিযান

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লায় আক্রান্ত কেউ সনাক্ত না হলেও জনসচেতনতা ও প্রতিরোধে কুমিল্লায় বেশ কিছুদিন ধরে মশা নিরসনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও সিটি কর্পোরেশন। নগরবাসীকে সচেতন করতে সিভিল সার্জন অফিস থেকেও সচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা করা হয়েছে। গতকাল ও মশার ওষুধ ছিটিয়ে নিধন কার্যক্রম চালিয়েছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মিরা। আজ চিকুনগুনিয়া বিষয়ে কুমিল্লা টাউন হলে রাত ৮টায় সচেতনতামূলক ও করণীয় বিষয়ে আলোচনার আয়োজন করা হয়েছে। এদিকে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কুও সিটি কর্পোরেশন থেকে মশা নিরসনের জন্য সতর্কাবস্থায় রয়েছেন। নগরবাসীকে যেখানে সেখানে ময়লা না ফেলা এবং কোথাও পানি জমে থাকলে তা তাড়াতাড়ি পরিষ্কার করার জন্য আহবান জানিয়েছেন তিনি।জানা যায়, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে মহানগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে ৩৬জন কাউন্সিলরকে মশানিরসনে ওষুধ ও মেশিন দেয়া হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে প্রতিদিনই মশানিরসনে কাজ চলছে। এদিকে গতকাল মহানগরীর ব্যস্ততম সড়ক কান্দিরপাড়, টাউন হল, নিউমার্কেট, মনোহরপুর, বাদুরতলা, পূবালী চত্বর, লিবার্টি চত্বরে ব্যাপক মশা নিরসনে অভিযানে নামেন সিটি কর্পোরেশনের কর্মীরা। মশা নিরসনে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানিয়েছে।এ বিষয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু জানান, আমরা চিকুনগুনিয়া ছাড়াও সবসময় মশার ওষুধ দিয়ে থাকি। প্রতিটি ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কাছে মেশিন ও ওষুধ দেয়া আছে। বর্তমানে চিকুনগুনিয়া আতঙ্কের কারণে সতর্ক ও প্রতিরোধে বেশি করে দেয়া হচ্ছে। এইসকল কার্যক্রমের অর্থ সিটি কর্পোরেশনকে দিতে হচ্ছে। কাউন্সিলররা ওষুধ চাইলে মেইন অফিসে ওষুধ রয়েছে। নতুন তিনটি ‘ফকার মেশিন’ দিয়েও সব জায়গায় মশা নিরসনের কাজ চলছে। তবে এই বিষয়ে নগরীর সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা ফেলার জন্য মেয়র মনিরুল হক সাক্কু নগরবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন। বাড়ি কিংবা আঙ্গিনার আশেপাশে জমে থাকা পানি পরিষ্কার করে ফেলবেন।আজ কুমিল্লা টাউন হলে রাত ৮টায় চিকুনগুনিয়া বিষয়ে জনসচেতনতামূলক আলোচনার আয়োজন করেছে কুমিল্লা বিএমএ ও সোসাইটি অব মেডিসিন কুমিল্লা।এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো: জাহাংগীর আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন ও সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান। সভাপতিত্ব করবেন বিএমএ সভাপতি আবদুল বাকি আনিছ। আলোচনা সভায় আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ডাক্তারসহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!