1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ১১:০৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :

কুমিল্লার দাউদকান্দি সালিশে গৃহবধূকে বর্বর নির্যাতন, গ্রেপ্তার ২

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : শনিবার, ১১ আগস্ট, ২০১৮
  • ২২ বার পড়া হয়েছে

কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলায় গ্রাম্য সালিশে জনসম্মুখে চার সন্তানের জননীকে বর্বর নির্যাতন করা হয়েছে।

স্বামীর ভাইদের যোগসাজশে এবং স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে সালিশ বৈঠকে আসমা আক্তারকে পেটানো হয়। এই ভিডিও সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নজরে আসে।

উপজেলার বারপাড়া ইউনিয়নের বেকিসাতপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। আসমা আক্তার ওই গ্রামের সামছু ব্যাপারীর ছেলে প্রবাসী কবির হোসেনের স্ত্রী। এ ঘটনায় আসমার বোন নারগিস আক্তার বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে দাউদকান্দি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আসমা আক্তারের এক ছেলে কোরআনে হাফেজ। এক ছেলে মাদ্রাসায় এবং এক ছেলে শিশু শ্রেণীতে পড়ে। আরেক ছেলের বয়স চার বছর। গত ৩১ জুলাই রাতে ‘পরকীয়ায় জড়িত’ অভিযোগে পাশের গ্রামের আলমকে আসমার ঘরে আটকে রাখা হয়। অভিযোগ উঠেছে, রাতে তাদের দুইজনকে দফায় দফায় নির্যাতন চালায় প্রবাসী কবিরের ভাই সাইফুল, অপর ভাই খোকনের স্ত্রী শিল্পী, স্থানীয় বাবুল, মিন্টু ও মোস্তাক। পর দিন সকালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনির হোসেন তালুকদারের উপস্থিতিতে সালিশের আয়োজন করা হয়। সালিশ চলাকালে প্রতিবেশী মিন্টু মাতব্বরদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লাঠি দিয়ে আসমাকে বেধড়ক পেটানো হয়। পেটানো হয় আলমকেও।

এ ঘটনায় আসমার বোন বাদী হয়ে দাউদকান্দি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামি প্রবাসী কবিরের ভাই সাইফুল ও একই গ্রামের মৃত আবুল হাসেমের ছেলে বাবুলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অন্য আসামিরা হলেন একই গ্রামের মোবারকের ছেলে মিন্টু, বারেক মিয়ার ছেলে মোস্তাক ও আসমার জা শিল্পী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সালিশে উপস্থিত বারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনির হোসেন তালুকদার বলেন, বিষয়টা তাদের পারিবারিক ষড়যন্ত্রের অংশ। কবিরের চার ভাই ও এক ভাবি মিলে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। সকালে সালিশ শুরুর পর হঠাৎ করে কবিরের এক ভাই এসে আসমাকে মারধরের নির্দেশ দিতে থাকে। পরে তার ইউনিয়নের তিনজন সদস্য ও আশপাশের লোকজন মিলে আহত দুইজনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য পাঠান এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন বলেন, এ ঘটনার প্রধান আসামি সাইফুল এবং অপর আসামি বাবুলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। অচিরে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!