একই সিনেমা, হল ভেদে দর্শকের ভিন্ন সাড়া

ঈদের দুই আলোচিত সিনেমা ‘বস টু’ ও ‘নবাব’ নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ সিনেমা হল ভেদে ভিন্ন দেখা গেছে। ভাল হলে দর্শক চাহিদা মেটানো যাচ্ছে না, আবার কোনো কোনো হলে শোর সব টিকিটই বিক্রি হচ্ছে না।
রাজধানীর বিভিন্ন সিনেমা হল ঘুরেদেখা যায়, সোমবার ঈদের দিনদিনের তুলনায় ঈদের দ্বিতীয় দিন দর্শকের প‌রিমাণ প্রায় তিন ভাগের এক ভাগে নেমে এসেছে। ছুটির পরে মানুষ ঢাকায় ফিরলে বাকি সময়গুলো ভালো আয় হবে বলে আশা করছে হল কর্তৃপক্ষ।
তবে ভিন্ন বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সের মত আধুনিক হলে দর্শকদের লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হয়েছে সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে। দীর্ঘ লাইন ও অনেকে টিকেট না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন।
আনন্দ, রাজমনিতে ‘বস-টু এবং পদ্মা-সুরমা, অভিসার সিনেমা হলে চলছে ‘নবাব’। বেলা ১২টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত চারটি করে শো চলছে বলে জানিয়েছেন পদ্মা-সুরভী সিনেমা হলের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক মিঠু।
মিঠু ব‌লেন, ‘ঈ‌দের দিন নবাবের চা‌হিদা ছিল অনেক। দুপুরে প্রথম ঘণ্টা হিসাবে আজকে ঈদের দ্বিতীয় দিন টি‌কিট বি‌ক্রি ৩০% নেমে এসেছে।’ ছুটির পরে মানুষ ঢাকায় ফিরলে বাকি সময়গুলোতে ভালো আয় হবে বলে আশায় তিনি। বলেন, ‘আর যদি না চলে, তাইলে দুই সপ্তাহ পর অন্য ছবি লাগামু।’
ফার্মগে‌টের আনন্দ সি‌নেমা হলের কাউন্টার মাস্টার বলেন, ‘বস-২ গতকালের তুলনায় প্রথম শোতে টি‌কিট বিক্রির পরিমাণ ২৫% কম। ঈদের দিন ডি‌সি ফুল গেছে এবং রিয়ার প্রায় ভরপুর আছিল।’
সাধারণ মানের এই হলগুলোতে দর্শক কমলেও স্টার সিনেপ্লেক্সে বরং আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। দর্শকরা বলছেন, ভাল পরিবেশ না থাকলে মধ্যবিত্ত বা উচ্চমধ্যবিত্ত শ্রেণির লোকজন হলমুখী হবে না। এ কারণেই স্টার সিনেপ্লেক্স বা এই মানের হলগুলোতে দর্শকের ঘাটতি হয় না কখনও।
স্টার সিনেপ্লেক্সের কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধি বলেন, ‘এখানে বিদেশি (ট্রান্সফরমারস-৫, ওনডার ওম্যান, পাইরেটস অব ক্যারিবিয়ান-৫, দ্য মামি, ডিসপিকেবল মি-৩ এবং কারস-৩।) ও দেশি ‘বস-টু’ ও ‘নবাব’ চলছে। এখনো দর্শকের চাপ রয়েছে। ‘বস-টু’ ও ‘নবাব’ এর চাহিদাও ভালো।’
স্টার সিনেপ্লেক্সে ‘বস টু’ দেখতে আসা ভার্সিটি শিক্ষার্থী সজিব আহমেদ বলেন, ‘ঈদের দিন বন্ধুদের সাথে ঘুরাফেরায় সময় পাইনি। তাই আজকে কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে আমার প্রিয় নায়ক জিতের ছবি দেখতে আসলাম।’
নবাব দেখতে আসা শাকিব খান ভক্ত পাপ্পু বলেন, ‘শাকিব মানেই হিট ছবি। ঈদের দিন দেখসি আইজকাও দেতে আইসি। ১২ টার শো আইতে দেরি হইসে, তিনটার শোর ডিসি টিকেট নিসি।’
ছুটির সময়টাতে বিনোদন কেন্দ্রে ঘুরোঘুরির পাশাপাশি ভিড় থাকে সিনেমা হলেও। আর এই ঈদকে উৎসবকে কেন্দ্র করে চলচ্চিত্র শিল্পেও লাগে নতুন হাওয়া।
প্রতিবছরই ঈদের সময় তারকাবহুল ও বড় বাজেটের ছবি মুক্তি দিতে ব্যস্ত থাকে তারা। এরই ধারাবাহিকতায় দর্শকদের জন্য এবারের ঈদে বাংলাদেশ ও কলকাতার বড় দুই তারকার তিনটি ছ‌বি দেশের মোট ২৭৫টি সিনেমা হলে প্রদর্শিত হচ্ছে।
শাকিব খান ও শুভশ্রী অভিনীত ‘নবাব’ সারা দেশে ১২৪টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে। এবং কলকাতার অভিনেতা জিৎ, শুভশ্রী ও বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া অভিনীত ‘বস টু’ মুক্তি পেয়েছে ১১১টি হলে।
শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস অভিনিত ‘রাজনীতি’ ছবিটি দেশের ৪০টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে। ছবিটি বুলবুল বিশ্বাস পরিচালনা করেছেন।
এফডিসি সংশ্লিষ্ট বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পি ও কলাকুশলীরা যৌথ প্রযোজনার এই দুটি ছবিতে অনিয়ম দাবি করে মুক্তি বন্ধে দুদিন সেন্সর বোর্ড ঘেরাও করে রাখে। কিন্তু সকল বাধা পিছনে ফেলে সাকিব খান ও বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও কলকাতার এস কে মুভিজ প্রযোজিত ‘নবাব’এবং বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও জিতের প্রতিষ্ঠান জিৎ’স ফিল্মওয়ার্কস প্রাইভেট লিমিটেডের ‘বস টু’ ছবি দুটি সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!