আজ মেসির বিয়ে

ক্রীড়া ডেস্ক : ১৯৯৬ সালে। লিওনেল মেসি তখন ৯ বছরের বালক। প্রেম, ভালবাসা এই শব্দগুলোর সঙ্গে তখন আলাপ হয়নি। বন্ধু লুকাস স্ক্যাগলিয়ার সঙ্গে রোজারিওতে ফুটবল খেলেই সময় কাটত মেসির। কিন্তু শুধুই কি বন্ধুর সঙ্গ? নাকি আরও কারও সঙ্গ চাইত মন?
শেষমেশ স্ক্যাগলিয়ার কাজিন আন্তোনেল্লা রোকুজ্জোর সঙ্গে মেসির দেখা। প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়া, ভালো লাগা। ধীরে ধীরে সেটা ভালোবাসায় রূপ নেয়। ২০০৭ সালে জানাজানি হয় এই সম্পর্কের কথা। এরপর তিন বছর চলে প্রেমের লুকোচুরি খেলা।
অবশেষে আজ গাঁটছড়া বাঁধছেন মেসি আর আন্তোনেল্লা। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায়। সিটি সেন্টার রোজারিওর পাঁচতারা হোটেল। এই কমপ্লেক্সেরই ‘পুল্লামন হোটেল’ এ হবে রিসেপশন। ১৮৮টি ঘর নিয়ে এই পাঁচতারা হোটেলটি তৈরি। যার একদিকে আছে ক্যাসিনো, যেখানে বিয়ের দু’দিন আগে আদালতের নির্দেশে তল্লাশি চালায় পুলিশ ও আয়কর দপ্তর। কর ফাঁকির অভিযোগ রয়েছে ক্যাসিনো মালিকের বিরুদ্ধে।
এদিকে রাজকীয় এই বিয়ে নিয়ে ইতিমধ্যেই গোটা আর্জেন্টিনা জুড়ে চর্চা। তুলনা টানা হচ্ছে ডিয়েগো ম্যারাডোনা আর ক্লদিয়া ভিলাফেনের বিয়ের। ১৯৮৯ সালে লুনা পার্কের সেই বিয়েতে হাজির ছিলেন ১২০০ অতিথি। মেসির বিয়েতে আমন্ত্রিত অতিথি মাত্র ২৬০ জন।
সবচেয়ে অবাক করা খবর, মেসির বিয়েতে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে। তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন লুইসক এনরিকে। জানা যায়, পরে বার্সায় আলাদা করে পার্টি দেবেন মেসি। ২৬০ জন অতিথির নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা রক্ষায় ৩০০ জন নিরাপত্তারক্ষী থাকবেন। ১০০ জন সাংবাদিককে মেসির বিয়ে কভার করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!