আজ জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস আজ ।প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োজিত সিভিল সার্ভেন্টগণ সরকারি কার্যসম্পাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকেন। সংবিধানের আলোকে সিভিল সার্ভিস মূলত বিবিধ আইন-কানুন, বিধি-বিধান, পরিপত্র, আদেশ-নিষেধ দ্বারা পরিচালিত। সর্বোপরি জনকল্যাণই সিভিল সার্ভেন্টদের মূল উদ্দেশ্য।মানুষ সিভিল সার্ভেন্টদের কাছে সুশাসন ও সেবা আশা করে। সুশাসন নিশ্চিত করতে হলে নাগরিক সেবা সহজ, সুলভ, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক করতে হবে। যার কাছে যেটুকু সেবা প্রদানের সুযোগ রয়েছে সেটুকু সঠিক ও সর্বোত্তমভাবে নাগরিকদের প্রত্যাশা অনুযায়ী প্রদান করাই সিভিল সার্ভেন্টদের লক্ষ্য হওয়া উচিৎ।
দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী প্রদান করেছেন।প্রদত্ত বাণীতে রাষ্ট্রপতি সুশাসন নিশ্চিত করে নাগরিক সেবা সহজ, সুলভ, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক করতে অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করার জন্য প্রজাতন্ত্রের কর্মচারিদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘প্রশাসন এখন উন্নয়নমুখী ও জনকল্যাণমুখী। এখন আর নিজেদেরকে জনগণের শাসক ভাবার কোনো অবকাশ নেই।’দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে আইসিটি কার্যক্রমকে উন্নত ও সহজতরকরণ এবং স্বল্প খরচে প্রান্তিক জনগণের কাছে সেবা পৌঁছানোর জন্য সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’বাণীতে প্রধানমন্ত্রী প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস’ পালন করায় আনন্দ প্রকাশ করেন এবং দিবসটির সাফল্য কামনা করেন।দিবসটি উপলক্ষে জনপ্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সৃজনশীল ও ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে জাতীয় ও জেলাপর্যায়ে জনপ্রশাসন পদক-২০১৭ প্রদান করা হবে আজ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেলা ১১টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে পদক ও সম্মাননা তুলে দেবেন।জাতীয়পর্যায়ের এই পদক গ্রহণের জন্য মনোনীতদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠিও দেয়া হয়েছে। গত বছর থেকে এই পদক প্রথম চালু করা হয়।এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক বলেন, ‘জনপ্রশাসন এখন উন্নয়ন প্রশাসন হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। ফলে প্রশাসনিক কাঠামো পুনর্বিন্যাস ও সংস্কারের পাশাপাশি জনপ্রশাসনের দক্ষতা, সৃজনশীলতা ও উদ্ভাবনী সক্ষমতার গুরুত্ব বেড়েছে। সে জন্য এগুলোকে স্বীকৃতি দেয়া ও উৎসাহিত করা প্রয়োজন। সেই লক্ষ্যেই এই পদক প্রবর্তন করা হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!