You are here
Home > আন্তর্জাতিক > ভারতের রাষ্ট্রপতি পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি পেলেন না

ভারতের রাষ্ট্রপতি পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি পেলেন না

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে প্রত্যাখাত হয়েছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। প্রতিবেশি দেশটির আকাশপথ ব্যবহার করে আইসল্যান্ড সফরে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তার সেই অনুরোধ সরাসরি প্রত্যাখান করেছে ইসলামাবাদ। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।সম্প্রতি ভারত নিয়ন্ত্রীত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল হওয়া নিয়ে দু’দেশের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা চলছে। চলমান এই উত্তেজনার মধ্যেই এ ঘটনা ঘটলো বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে।
তারা জানায়, সোমবার আইসল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড ও স্লোভেনিয়া সফরের উদ্দেশে যাত্রা শুরুর কথা রয়েছে ভারতের রাষ্ট্রপতির। আইসল্যান্ড দিয়ে শুরু হতে যাওয়া এ সফর উপলক্ষে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দিতে ইসলামাবাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল দিল্লি। তবে ভারতকে সরাসরি না করে দিয়েছে ইসলামাবাদ।মূলত কাশ্মীরে দিল্লির ব্যাপক দমন-পীড়নের প্রতিবাদে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিজেই ভারতের এই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গেছে।এর আগে পাকিস্তানের বালাকোটে দিল্লি বিমান হামলা চালানোর পর ভারতের জন্য নিজ দেশের আকাশপথ বন্ধ করে দিয়েছিল ইসলামাবাদ। তখন প্রায় চার মাস পাকিস্তানের আকাশসীমা হয়ে ভারতের বিমান চলাচল বন্ধ থাকে।
২৬ ফেব্রুয়ারি বন্ধ করে দেওয়ার পর গত ১৬ জুলাই ফের আকাশপথ খুলে দেয় পাকিস্তান। পরে কাশ্মীর ইস্যুতে ফের একই পথ অনুসরণ করে ইসলামাবাদ। এতে করে বিপাকে পড়ে ভারত। কেননা, স্বাভাবিক সময়ে ভারতীয় বিমান সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ার কমবেশি ৫০টি বিমান বিভিন্ন রুটে প্রতিদিন পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার করে। এই বিমানগুলো মূলত যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে যাতায়াত করে।২০১৯ সালের ৫ আগস্ট ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে অঞ্চলটিকে দুই টুকরো করে দেয় দিল্লি। ওই দিন সকাল থেকে কার্যত অচলাবস্থার মধ্যে নিমজ্জিত হয় দুনিয়ার ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মীর উপত্যকা।
একে কেন্দ্র করে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস করাসহ ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে বহিষ্কার করে পাকিস্তান। দুই দেশের সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হয়। কাশ্মীর সীমান্তে চলছে টানটান উত্তেজনা। একইসঙ্গে সব ধরনের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চুক্তি স্থগিত ও ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে কালো দিবস হিসেবে পালন করেছে ইসলামাবাদ। এর মধ্যেই ভারতের রাষ্ট্রপতিকেও নিজ দেশের আকাশপথ ব্যবহারের অনুমতি দিতে অস্বীকৃতি জানালো পাকিস্তান।

Top