1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩৭ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ ছাত্র-ছাত্রীদের মানববন্ধন

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০১৭
  • ৩৭ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে সাত হাজার শিক্ষার্থীর পকেট কেটে প্রতি বছর ভর্তি ও সেশন ফি’র সঙ্গে অযৌক্তিক আরো ৬০ লক্ষ টাকা আদায় করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। অপ্রয়োজনীয় ৫টি খাতের কথা বলে মোটা অংকের ফি আদায় করা হলেও কলেজের শিক্ষার্থীদের কোন কাজে এই খাতের টাকা ব্যবহার হয় না। বরং এই খাতের টাকা আদায় ও খরচ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।গতকাল দুপুরে শহরের আলফাত স্কয়ারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এই তথ্য জানিয়েছেন কলেজের শিক্ষার্থীরা। সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত এই মানববন্ধনে কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরাও অংশ নেন। তারা এই অপ্রয়োজনীয় খাত থেকে টাকা আদায় বন্ধের দাবি জানিয়েছে।মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, প্রায় দুই দশকেরও অধিক সময় ধরে কারণ ছাড়াই কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচন বন্ধ। কলেজের নিজস্ব কোন পরিবহনও নেই। তারপরেও এই দুই খাত থেকে প্রতি বছর অপ্রয়োজনীয় ২৫০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। নিরাপত্তা প্রহরীর কথা বলে আরো ৫০০ টাকা, চিকিৎসা খাতে ২০ টাকা এবং ব্যবস্থাপনা খাতে শিক্ষার্থী প্রতি বছরে আরো ১০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। এই ৫ খাতের টাকা শিক্ষার্থীদের কোন কল্যাণে ব্যবহার হয় না। সাধারণ শিক্ষার্থীরাও এই অর্থের কোন সুবিধা ভোগ করতে পারেনা। তারপরও দীর্ঘদিন ধরে কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের পকেট কেটে এই টাকা নিচ্ছে। এই খাত থেকে টাকা আদায় ও ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে সুধীমহলে।বক্তারা মানববন্ধনে বলেন, ৬ জন নিরাপত্তা প্রহরীর বেতন খাতে বছরে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করা হচ্ছে। কিন্তু এই খাতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আদায় করা হচ্ছে প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। এই টাকা কোথায় কিভাবে ব্যবহার হচ্ছে তা জানেনা শিক্ষার্থীরা। আদায়কৃত এই টাকা লোপাট হচ্ছে জানান মানববন্ধনে আসা শিক্ষার্থীরা।মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি তারেক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক পুলক তালুকদার, ছাত্রনেতা আসাদ মনি, দুর্যোধন দাস, পাপ্পু পুরকায়স্থ, ইউনুস মিয়া বাবুল, সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাইদুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, শচীন পাল, রাজিব কুমার দে, সাহেল আহমদ, শুভ প্রমুখ।এ ব্যাপারে সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আব্দুস সাত্তার বলেন, শুধু আমিই নই, উক্ত খাতে অনেক আগ থেকেই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছে। রেজুলেশন করে টাকা সঠিক খাতে ব্যবহারও হচ্ছে। তবে এতটাকা কোথায় ও কিভাবে খরচ হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, সঠিক ভাবেই ব্যবহার হচ্ছে এবং কিছু টাকা তহবিলে জমাও আছে। বিস্তারিত জানতে হলে কলেজে গিয়ে জানার আহ্বান জানান তিনি।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!