1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ১১:৩৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
রাঙামাটির ১৪ বছরেও বিচার হয়নি সাংবাদিক জামাল হত্যার নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জে বিশ্ব দন্ত চিকিৎসক দিবস পালিত মানিকগঞ্জ ছাত্রলীগ নেতা মিরু হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন জিয়ার খেতাব বাতিলের বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা…মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বাংলাদেশ স্বল্প আয় থেকে উন্নয়নশীল দেশে পদার্পণ বড় সুখবর….পররাষ্ট্রমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সফল তিন সরকার প্রধানের একজন শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সব দাফতরিক ভাষায় ৭ মার্চের ভাষণ বিষয়ক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন ক্রিকেটারের করোনা আক্রান্তের খবরে বন্ধ হলো খেলা নেপালে ভারতীয়কে গুলি করে হত্যা ঝিনাইদহে ৩ দিনব্যাপী লালন স্মরণোৎসব শুরু

সুনামগঞ্জে ৮ বছরের শিশু দুই বছর ধরে বন্দী

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১ আগস্ট, ২০১৭
  • ৩০ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলা সদরে সবার চোখের সামনে অমানবিক ঘটনা ঘটলেও সহযোগিতায় কেউ এগিয়ে আসছেন না। স্থানীয়দের সবাই যেন দেখেও না দেখার ভান করে আসা-যাওয়া করেন। অসহায় এক হত দরিদ্র পরিবারের ফুটফুটে ৮ বছরের শিশু নিকলেশ দাসকে চিকিৎসার অভাবে হতভাগী মা নিশা রানী দাস নিরুপায় হয়ে ২ বছর যাবত কোমড়ে রশি দিয়ে ঘরের খুঁটির সাথে বেধে রেখেছে এ যেন মানবতার চরম বিপর্যয়। উপজেলা সদরের ঘুঙ্গিয়ারগাঁও বাজারের পুর্ব দিকে খাদ্য গোদামে চাল বিতরণ অনুষ্ঠানে যাবার পথে হঠাৎ এক মহিলার করুন কান্নার স্বর শুনা যায়। একটু এগিয়ে গিয়ে দেখা যায় গোদামের দক্ষিণ রাস্তার পাশে অবনী দাসের চা দোকানের পাশে সরকারী জায়গার উপর একটি ছাপটা ঘরের ভেতরে কাঁদছেন শিশু নিকলেশের মা নিশা রানী দাস। ধাক্কা দিয়ে বাশেঁর দরজাটি খোলতেই বিধবা নিশা রানী দাস ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,‘ আমরারে দেখন লাগত না, আমরা মরলে দেখতে আইওনা। মহিলা ঘরের একটু বাহিরে এলেই দেখা যায় পায়ে রশি দিয়ে বাধা শিশু নিকলেশকে বন্দি করে রাখার করুণ দৃশ্য। ছেলেকে কেন পায়ে রশি দিয়ে বেধে রেখেছেন জানতে চাইলে মা নিশা রানী দাস কেঁদে কেঁেদ বলেন,‘ ভাই পুলাডার মিরকি (মৃগী) রোগ আছে। এর লাগি ২ বছর ধইরা এই পালার (খুটি) সাথে বাইন্দা রাখতাছি। ছাড়লেই কই যায় পাওয়া যায় না। ’
শাল্লা উপজেলা প্রশাসনের চোখের সামনে গত ২ বছর যাবত শিশু নিকলেশ বন্দি অবস্থায় থাকলেও কেউ তা জানেন না। এই বিষয় নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের বেশ কয়েকজনের সাথে কথা হলে এ রকম কোন ঘটনা কথা কেউ শুনেনি বলে জানান।
অভাগী মা নিশা রানী কেঁদে কেঁদে আরো বলেন,‘ভাই চিকিৎসা করলে আমার পুলা ভাল ওইব। আমি গরিব মানুষ। মানুষের দোকান ও বাড়িত কাম কইরা দুইডা ভাত কাই। নিজের বাড়িও নাই রাস্তায় থাকি। একবার খাইলে আর একবার পাইনা। খাইতাম পারি না ডাক্তর দেখাইমু কেমনে। আমার জামাই আড়াই বছর আগে মারা গেছে। মরার আগে আমার জামাই পুলাডারে ২ বার ডাক্তর দেখাইছে তখন একটু ভালা আছিল আমার পুলাডা। এখন কি আর করমু বলেই তিনি কেঁদে ফেলেন।
জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলামকে অবগত করা হলে তিনি বলেন,‘ খোঁজ খবর নিয়ে সমাজসেবার মাধ্যমে ওই শিশুর চিকিৎসা সহায়তার উদ্যোগ নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!