1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৭:১৭ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে চিকিৎসক গ্রেফতার, ভুল চিকিৎসায় গৃহবধুর মৃত্যু

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : শনিবার, ২৯ জুলাই, ২০১৭
  • ৯ বার পড়া হয়েছে

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : ভুল চিকিৎসায় এক গৃহবধুর মৃত্যুতে গণরুষ ঠেকাতে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে গতকাল রাতে কথিত চিকিৎসককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। নিহতের নাম লাকী আক্তার (২২)। তিনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের ভাটি তাহিরপুর গ্রামের মহসিন মিয়ার স্ত্রী।’ গ্রেফতারকৃত চিকিৎসককের নাম মো. মনির হোসেন। তিনি টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতি উপজেলার পারখী গ্রামের আমির হামজার ছেলে ও তাহিরপুর সদরের মধ্যবাজারের সোনিয়া ডায়গনিষ্টিক এন্ড ডক্টরস চেম্বারস এর একজন নিয়মিত চিকিৎসক।
জানা গেছে,উপজেলার ভাটি তাহিরপুর গ্রামের গৃহবধু লাকী আক্তার তাহিরপুর সদরের মধ্যবাজারের সোনিয়া ডায়গনিষ্টিক এন্ড ডক্টরস চেম্বারস এর চিকিৎসক মো. মনির হোসেনের নিকট থেকে শারীরিক অসুস্থতার জন্য ২৫ জুলাই ব্যবস্থাপত্র নেন। ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ঔষধ সেবনের পর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার ফের চিকিৎসকের সাথে সাক্ষাত করে ফের ব্যবস্থাপত্রে অতিরিক্ত ঔষধপত্র লিখে দেয়া হলে মাত্রাতিরিক্ত ব্যথা নাশক ইনজেকশন ও উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন এন্টিবায়েটিক সেবনের পর সন্ধায় লাকী আক্তার মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। এক পর্যায়ে গৃহবধুর স্বজন ও এলাকাবাসী সংঘবদ্ধ হয়ে ঐ চিকিৎসককে ম্যাচ থেকে ধরে এনে বাজারে গণপিঠুনি দিয়ে ডায়গনিষ্টিক এন্ড ডক্টরস চেম্বারস এর ভেতর তালাবদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার
তাহিরপুর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার, থানার ওসি ও উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর চিকিৎসকরা ঘটনাস্থলে গেলে উক্তেজিত জনতার গণরোষ ঠেকাতে থানা পুলিশ অভিযুক্ত চিকিৎসক মনির হোসেনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। রাতেই গৃহবধুর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।’
তাহিরপুর থানার ওসি শ্রী নন্দন কান্তি ধর রাতে ভুল চিকিৎসায় গৃহবধুর মৃত্যুর অভিযোগ ও কথিত চিকিৎসককে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।’
উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন জানান, সোনিয়া ডায়গনিষ্টিক এন্ড ডক্টরস চেম্বারস এর বৈধতা ও মনির হোসেনের চিকিৎসক যোগ্যতার ব্যাপারে জানতে পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।’
তাহিরপুর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মীর্জা রিয়াদ হাসান বললেন, যতটুকু জানতে পেরেছি তাতে মনির হোসেন তার ব্যবস্থাপত্রে নিজের যোগ্যতা ডিএমএফ ও ডাক্তার লিখে থাকেন কিন্তু তাতে প্রমাণ হয়না সে একজন বৈধ যোগ্যতা সম্পন্ন চিকিৎসক বলা যায় একজন হাতুড়ে চিকিৎসক এমনকি তার ব্যবস্থাপত্র লিখারও কোন আইনগত ভিক্তি নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!