সংঘবদ্ধ ডাকাতদের হামলায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে তিন লক্ষাধীক টাকাসহ মালামাল লুট, থানায় মামলা

স্টাফ রিপোর্টারঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ব্যবসায়ীর গাড়িতে ডাকাতি করে নগদ তিন লাখ দশ হাজার টাকাসহ মূল্যবান মালামাল লুটে নিয়েছে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল। এঘটনায় ভুক্তভোগী মিজানুর রহমান দাবি হয়ে  সোমবার বিকেলে অজ্ঞাতনামা ১১-১২ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, চৌদ্দগ্রাম বিসিক শিল্পনগরীর মেসার্স মিজান অয়েল মিলস্ এর স্বত্তাধিকারী মিজানুর রহমান প্রতিদিনের ন্যায় বৃহস্পতিবার রাত সোয়া এগারটায় প্রাইভেটকার যোগে (ঢাকামেট্রো-গ-৩৯-৭৩৫৪) কুমিল্লার বাসায় ফিরছিলেন। এসময় তার সাথে ছিলেন মিজান অয়েল মিলসের কর্মকর্তা কুমিল্লা কোতয়ালীর তেলিকোনা গ্রামের অহিদ উল্যাহ পাটোয়ারীর পুত্র মোঃ হাসান, লাকসামের মিশ্রী গ্রামের মৃত আবদুল্লাহর পুত্র ফয়েজ উল্যাহ, মিজানের বন্ধু চৌদ্দগ্রামের মুন্সিরহাট ইউনিয়নের বাহেরগড়া গ্রামের জনি। গাড়িটি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরশান্নী বাজার এলাকায় পৌঁছলে হঠাৎ একটি বিকট শব্দ শুনে সবাই নেমে যায়। গাড়ি চেক করে উঠার সময় ১১/১২ জনের ডাকাতদল অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হাসান, ফয়েজ ও জনিকে এলোপাতাড়ি মারধর করে মহাসড়কের পাশে নিয়ে যায়। ডাকাতদল গাড়িতে থাকা নগদ তিন লাখ দশ হাজার টাকা ও দুইটি মোবাইল সেট নিয়ে যায়। হামলার সময় চিৎকার দিলে টহলরত হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। তখন ডাকাতরা একটি ব্যাগ ফেলে পশ্চিম দিকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। ব্যাগটি থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করলে সেখানে পাঁচটি প্যান্ট, তিনটি গেঞ্জি, একটি লুঙ্গি ও দুইটি মোবাইল সেট পাওয়া যায়। এঘটনায় মুন্সিরহাট ইউনিয়নের বিষবাঘ গ্রামের মৃত আবদুল মন্নানের পুত্র মিজান অয়েল মিলসের স্বত্তাধিকারী মিজানুর রহমান বাদি হয়ে সোমবার বিকেলে থানায় একটি মামলা করেছেন। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আতিকুর বিশ্বাস মুকুল বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্ত ডাকাতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.