1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০১:১৮ পূর্বাহ্ন

শুনানি ২ জুলাই, আগেই কেন বাড়ি ভাঙা হ‌চ্ছে: মওদুদ

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৫ জুন, ২০১৭
  • ১০ বার পড়া হয়েছে

‌নিজস্ব প্র‌তিবেদক : গুলশান-২ এর ১৫৯ নম্বরের বাড়িটি রাজউক ভাঙতে পারে না বলে দাবি করেছেন বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ। তিনি বলেছেন, তাকে উচ্ছেদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তার রিট আবেদনের শুনানি হয়নি এখনও। কাজেই এই বিষয়টি এখনও বিচারাধীন। তার আগেই রাজউক রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে এই কাজ করছে।রবিবার গুলশানের সেই বাড়ি ভাঙা শুরুর পর গুলশান ৫১ নম্বর সড়কের ২ নম্বর বাড়ির পঞ্চম তলার ফ্ল্যাটে সাংবাদিকদেরকে ডেকে কথা বলেন মওদুদ।১৫৯ নম্বর বাড়িটিতে চার দশকেরও বেশি সময় ধরে থাকতেন বিএনপি নেতা। কিন্তু আশির দশকে জাল দলিল করে ভাইয়ের নামে বাড়িটি দখল করা হয়েছে বলে আদালতে প্রমাণ হওয়ার পর গত ৭ জুন সেখান থেকে মওদুদকে উচ্ছেদ করে রাজউক। সেদিনই মওদুদ বিচারিক আদালতে একটি মামলা করেন। এবার মালিকানা স্বত্ত্ব দাবি না করে মওদুদ বলেন, তিনি ওই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।আর পরদিন উচ্চ আদালতে উচ্ছেদের বৈধতা চ্যলেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে রিট করেন মওদুদ। এতে বাড়িটি ফিরিয়ে দেয়ার আবেদনও করা হয়। মওদুদের সেই রিট আবেদনের ওপর শুনানির দিন নির্দিষ্ট হয়েছে ২ জুলাই।মওদুদ বলেন, ‘এটা ভাঙা সম্পূর্ণ বেআইনি। আদালতে বিষয়টি বিচারাধীন থাকা সত্ত্বেও এই ধরনের অভিযান সম্পূর্ণ আদালতের প্রতি অবজ্ঞা ও বেআইনি ছাড়া আর কিছু বলা যায় না। আদালতে বিষয়টি এখনো বিচারাধীন আছে। তারা দুই তারিখের শুনানি পর্যন্ত তো অপেক্ষা করতে পারতো। বন্ধের সময়দের ঠিক আগেই কেনো ভাঙা হচ্ছে?’।মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘যারা বৈধ বা অবৈধ আইন অনুযায়ী প্রত্য‌ককেই ৩০ দিনের সময় দেয়া হয়। আদালতের কোনো নির্দেশ নাই এবং কোনো নোটিশও নাই। যা করছে সবই তারা গায়ের জোরে করছে।’১৫৯ নম্বর সড়কে এক বিঘা ১৩ কাঠা জমির ওপর প্রায় ৩০০ কোটি টাকা মূল্যের জমিটির প্রকৃত মালিক ছিলেন পাকিস্তানি নাগরিক মো. এহসান। ১৯৬০ সালে তৎকালীন ডিআইটির কাছ থেকে তিনি ওই বাড়ির মালিকানা পান। ১৯৬৫ সালে বাড়ির মালিকানার কাগজপত্র এহসানের স্ত্রী অস্ট্রিয়ার নাগরিক ইনজে মারিয়া প্লাজের নামে নিবন্ধন করা হয়। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে এহসান স্ত্রীসহ ঢাকা ছাড়েন। তারা আর ফিরে না আসায় ১৯৭২ সালে এটি পরিত্যক্ত সম্পত্তির তালিকাভুক্ত হয়।ওই বছরই মওদুদ ওই বাড়ির দখল নেন। কিন্তু ইনজে মারিয়া প্লাজের মৃত্যুর পর ভুয়া আমমোক্তারনামা তৈরি করে মওদুদের ভাই মনজুর আহমদের নামে ওই বাড়ির দখল নেওয়া হয়। কিন্তু যে তারিখে ইনজে মারিয়া প্লাজ আমমোক্তারনামা করেছেন বলে দাবি করা হয়েছে, তার আগেই তিনি মারা যান।২০১৩ সালে দুদক এই বাড়ি দখলের অভিযোগে মওদুদের নামে মামলা করে। এরপর আদালত বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে রায় দিলে তিনি উচ্চ আদালতে যান। সবশেষ গত ৪ জুন আপিল বিভাগ মওদুদের রিভিউ আবেদন নাকচ করে দেয়। আর ৭ জুন মওদুদকে উচ্ছেদ করে রাজউক।মওদুদ দাবি করেন, তাকে উচ্ছেদের পরও ওই বাড়িতে বেশ কিছু মালামাল রয়ে গিয়েছিল। তিনি বলেন, ‘তাদের লোকের মাধ্যমে খবর পাঠিয়েছিলাম যে এই বাড়িতে আমাদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কিছু জিনিস রয়েছে। সেগুলো আজকে নষ্ট হচ্ছে। এগুলো তো আমার সম্পদ, রাজউক কোন অধিকারে নষ্ট করছে?’মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি।এটা একটা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা। শুধুমাত্র আমি বিরোধী দলে বলে আমার সাথে এরকম করা হচ্ছে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!