র‌্যাবের অভিযানে অস্ত্রসহ ধরা খেল ২ জলদস্যু আটক

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: ডাকাতির প্রস্তুতিকালে লক্ষ্মীপুরে অস্ত্রসহ দুইজন জলদস্যুকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১১)।
বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে অস্ত্রসহ দুই জলদস্যুকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লক্ষ্মীপুর র‌্যাব ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি অধিনায়ক ও সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবু ছালেহ।
এর আগে একই দিন দুপুরে নোয়াখালীর চরজব্বার থানাধীন চরবাগ্গা এলাকায় সাগরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে তাদের আটক করা হয়।
আটককৃতরা জলদস্যুরা হলো- লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চরলক্ষ্মী গ্রামের ফকরুদ্দিনের ছেলে মো. রাসেল ওরফে কালা (২৫) ও নোয়াখালী জেলার দক্ষিণ চরবাগ্গা গ্রামের আবদুল গণির ছেলে মো. ইলিয়াছ (২৮)। তারা উভয়ে স্থানীয় জলদস্যু ‘ফকির বাহিনীর’ সক্রিয় সদস্য বলে জানা গেছে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-১১ জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে সাগরে ডাকাতির উদ্দেশ্যে নোয়াখালীর চরজব্বার থানাধীন চরবাগ্গা এলাকায় জলদস্যুরা প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ সময় গোপন তথ্যের ভিত্তিতে লক্ষ্মীপুর র‌্যাব-১১-এর একটি অভিযানিক দল ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুইজন জলদস্যুকে আটক করে। পরে তাদের কাছ থেকে দুইটি এলজি, ৪ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও দুইটি মুঠোফোন উদ্ধার করা হয়।
আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে লক্ষ্মীপুর র‌্যাব ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি অধিনায়ক ও সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবু ছালেহ জানান, আটককৃত আসামিদের বিরুদ্ধে নোয়াখালীর চরজব্বার থানায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুইটি মামলার প্রস্তুতি চলমান রয়েছে। এছাড়া নোয়াখালী-লক্ষ্মীপুর জেলার চরাঞ্চল, মেঘনার মোহনা ও বঙ্গোপসাগরে জলদস্যুতা দমনে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবু ছালেহ।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি ইলিশ মৌসুমকে সামনে রেখে জলদস্যু বাহিনীর সদস্যরা মেঘনার মোহনা ও বঙ্গোপসাগর এলাকায় তৎপর হয়ে উঠেছে। ফলে জেলেদের অপহরণ, খুন, ট্রলার ছিনতাই ও মুঠোফোনের মাধ্যমে চাঁদাবাজি করে জলদস্যুরা ত্রাসের রাজত্ব কায়েমের চেষ্টা করছে।