মিয়ানমারের সঙ্গে ১০টি বিষয়ে ঐকমত্য হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গা ইস্যুতে সদ্য মিয়ানমার সফর করে আসা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন, দেশটির সঙ্গে ১০টি বিষয়ে বাংলাদেশের ঐকমত্য হয়েছে। তবে এসব বিষয়ে কিছু সংশোধনী দিয়েছে মিয়ানমার। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে কিছু কাটছাঁট করে আবার তাদের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। এভাবে বিষয়টি চূড়ান্ত পর্যায়ে যাবে বলে জানান মন্ত্রী। তবে ১০টি বিষয় কী কী এ ব্যাপারে বিস্তারিত বলেননি তিনি।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে এক আলোচনা সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। সার্ক কালচারাল সোসাইটি আয়োজিত ‘অপ-সংস্কৃতির বিরুদ্ধে গড়ে তুলো মুক্ত ধারার সাংস্কৃতিক গণজাগরণ’ শীর্ষক দশম মৈত্রী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও উগ্র বৌদ্ধদের নির্যাতনের মুখে গত ২৫ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা নাগরিকদের ঢল নামে বাংলাদেশে। দুই মাসের বেশি সময়ে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা ইতোমধ্যে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে। সবমিলিয়ে প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা এখন বাংলাদেশের জন্য বড় বোঝা। বিষয়টির সমাধান খুঁজতে গত সোমবার মিয়ানমার যান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচিসহ দেশটির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ ব্যাপারে আলোচনা করেছেন। বুধবার দেশে ফিরে মন্ত্রী জানান, মিয়ানমার তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে সম্মত হয়েছে।

আসাদুজ্জাম খাঁন কামাল তার সফরের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা করতে আমি মিয়ানমারে গিয়েছিলাম। তাদের ভবিষ্যৎ কী হবে এটা নিয়ে আমি সু চিকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম। তিনি বলেছেন, খুব শিগগিরই এর সমাধান করবেন। বিশ্বের সবাই সোচ্চার হলে আশা করি তিনি এর ব্যবস্থা করবেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কফি আনান কমিশন যে রিপোর্ট দিয়েছি এবং আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে যে পাঁচটি পয়েন্টে কথা বলেছেন এর ওপর ভিত্তি করেই আমরা কথা বলেছি। আমরা বলেছি একটি জয়েন্ট ওয়ার্কিং কমিটি গঠন করার জন্য। এতে তারা সম্মত হয়েছে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তাদের সাথে দশটি বিষয় নিয়ে আমাদের ঐকমত্য হয়েছে। কয়েকটি জায়গায় তারা কাটাকাটি করেছে। যে যে জায়গায় কাটাকাটি করেছে সেগুলো আমাদের কাছে পাঠিয়েছে এবং ওই কাটাকাটির কিছু অংশ আমরা সুন্দর করে পাঠিয়ে দিয়েছি। ওরা একবার পাঠিয়েছে, আমরা পাঠাবো, ওরা আবার পাঠাবে এভাবে চলতেই থাকবে। আমরা আলোচনার মাধ্যমেই সেগুলোর সমাধান করবো। আমারা হাঁটা শুরু করেছি শান্তির জন্য, আশা করি সবই ঠিক হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.