বিশ্ব চিনলো বাংলাদেশি জেসিয়াকে

বিনোদন ডেস্ক : আর মাত্র একদিন বাকি। ৩১ অক্টোবর চীনের শিমেলং ওশান কিংডমে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে পর্দা উঠতে যাচ্ছে ‘৬৭তম মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতার। আসরে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন পুরান ঢাকার মেয়ে জেসিয়া ইসলাম। দেশ থেকে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ খেতাব জিতে গত ১৯ অক্টোবর চীনে উড়ে যান তিনি।

এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতার নানা ইভেন্ট। একটা ইভেন্টেরই অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার অন্য প্রতিযোগীদের সঙ্গে মঞ্চে ডাকা হয় বাংলাদেশের জেসিয়া ইসলামকে। মঞ্চে তাঁকে স্বাগত জানান বিশ্বসুন্দরী স্টেফানি দেল ভালে। অন্য প্রতিযোগীদের মতো লালগালিচায় তাঁকেও পরিচয় করে দেয়া হয়। সেখানে নিজের পরিচয় দিয়ে ক্যাটওয়াক করেছেন জেসিয়া।

অনুষ্ঠানে স্টেফানি দেল ভালের নেতৃত্বে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার এবারের প্রতিযোগীরা সম্মিলিত কণ্ঠে গেয়েছেন মিস ওয়ার্ল্ডের থিম সং ‘লাইট দ্য প্যাশন, শেয়ার দ্য ড্রিম’। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ৭০০ প্রভাবশালী ব্যবসায়ী নেতা ও চীনের সরকারি কর্মকর্তারা।

ওইদিন সন্ধ্যায় চীনের শেনজেন শহরে অনুষ্ঠিত হয় নিলাম অনুষ্ঠান। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া প্রত্যেক প্রতিযোগী নিলামের জন্য নিজ নিজ দেশের একটি করে উপহার সঙ্গে নিয়ে যান। এই নিলাম থেকে দেড় লাখ পাউন্ড পাওয়া গেছে। সেই অর্থ দান করা হয়েছে মাদার ওয়ার্কসের তহবিলে। চীনের বিভিন্ন প্রান্তে মায়েদের সহায়তা করছে এই বেসরকারি সংস্থা।

এদিকে চীনে কর্মব্যস্ত দিন অতিবাহিত করছেন জেসিয়া। গত শুক্রবার সকালে চীনের গুয়াংজু থেকে হংজো শহরে যান প্রতিযোগীরা। এই শহরে ওয়েন্সলি সিল্ক কালচারাল মিউজিয়াম ঘুরে দেখেন সবাই। এখানে প্রত্যেককে সিল্কের তৈরি স্কার্ফ উপহার দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, ২৯ সেপ্টেম্বরে ঢাকায় আয়োজিত ‘লাভেলো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৭’ এর চূড়ান্ত পর্বে বিজয়ী হিসেবে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের নাম ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয় বিতর্ক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ গণমাধ্যমে চলে নানা জল্পনা-কল্পনা। চূড়ান্ত রায়ের পর জানা যায় জান্নাতুল নাঈম বিবাহিত। কেড়ে নেয়া এভ্রিলের মুকুট। পরে রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে সংবাদ সম্মেলন করে সংশোধিত রায়ে নতুন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হিসেবে জেসিয়া ইসলামের নাম ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.