1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:১৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ইসরায়েলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে পাঁচটি প্রস্তাব গৃহীত সেনাপ্রধানের যে কোনো হুমকি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৫ জন মৃত্যু আক্রান্ত ২ হাজার ৩১৬ জন জাফলং ট্যুরিস্ট পুলিশ চট্টগ্রাম থেকে আগত এক পর্যটকে মৃত্যুর হাত থেকে বাচাঁলেন জনগণের সঙ্গে খারাপ আচরণের কোনো সুযোগ নেই….আইজিপি সচিবালয় আঙ্কারায় স্থাপিত হবে বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য….তথ্যমন্ত্রী সিলেটের নবনিযুক্ত কমিশনার মোহাম্মদ আহসানুল হকের সাথে চেম্বার নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় সভা সিলেট র‌্যাব ৯ এর অভিযানে বিভিন্ন স্থান থেকে মদ-ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ৮ পাকিস্তান ও চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সফরে দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা চুক্তি শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

বিচারাধীন বন্দির সন্তানকে নারী পুলিশকর্মীর স্তন্যদান!

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • ১৩ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক

পেশার কারণে তাদের কঠিন হতে হয়। কিন্তু হাজার হোক তিনি তো একজন নারী। তাই আদালতে এক বিচারাধীন আসামীর শিশুসন্তানকে ক্ষূধার জ্বালায় কাঁদতে দেখে হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারেননি চীনের এক নারীপুলিশ কর্মকর্তা। আদালতের কক্ষের বাইরে নিয়ে গিয়ে শিশুটিকে স্তন্যদান করলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই ঘটনার ছবি পড়েছে গোটা বিশ্বে।ঘটনাটি ঘটেছে চীনের শাংজি প্রদেশে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, সেখানকার একটি আদালতে মামলার শুনানি চলছিল। আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়িয়েছিলেন এক নারী। আদালতে কক্ষেই ছিল ওই নারীর চারমাসের শিশুসন্তান। আচমকাই ক্ষুধা পেয়ে কাঁদতে শুরু করে শিশুটি। বহু চেষ্টা করেও কান্না থামানো যায়নি।এরপরই মায়ের অনুমতি নিয়ে শিশুটিকে আদালত কক্ষের বাইরে নিয়ে গিয়ে স্তন্যদান করেন লিনা হাও নামে চিনের সেই নারীপুলিশ কর্মকর্তা। আদালতে কক্ষের বাইরে এককোণে চেয়ার বসে শিশুটিকে যখন স্তন্যদান করছিলেন লিনা, তখন তার ছবি তোলেন সেই নারী পুলিশ কর্মকর্তার এক সহকর্মী। ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টও করে দেন তিনি। শেয়ার করে ছবিটি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেন নেটিজেনরা।জানা গেছে, সদ্য মা হয়েছেন লিনা হাও নামে সেই চিনা নারী পুলিশ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ‘আমি নিজে একজন মা। তাই ওই শিশুটির মা কতটা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন, সেটা আমি বুঝতে পেরেছিলাম। মনে হয়েছিল, শিশুটিকে শান্ত করার জন্য কিছু করা উচিত। ’লিনা হাওয়ের দাবি, তার জায়গায় যদি অন্য কোনও মহিলা পুলিশ কর্মকর্তা থাকতেন, তাহলে তিনিও একই কাজ করতেন। ওই শিশুটির মায়ের বিরুদ্ধে ভুয়ো অর্থলগ্নি সংস্থার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। আদালতে নিজের অপরাধ স্বীকারও করে নিয়েছেন তিনি। তাকে কারাদণ্ডের সাজা দিয়েছেন বিচারক।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!