1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৩৯ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশের প্রথম মুক্তাঞ্চল ‘জগন্নাথদীঘি’ পাঠাগার ও দাতব্য চিকিৎসালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ২৪ বছরেও বাস্তবায়ন হয়নি

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : সোমবার, ২৭ নভেম্বর, ২০১৭
  • ২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) বাংলাদেশের প্রথম মুক্তাঞ্চল ‘জগন্নাথদীঘি মুক্তাঞ্চল’ দিবস। স্বাধীনতাযুদ্ধের এই দিনে মুক্তিযোদ্ধাদের নিরলস প্রচেষ্টায় সীমান্তবর্তী কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগন্নাথদীঘির উভয় দিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার শত্রুমুক্ত হয়েছিল। প্রথম মুক্তাঞ্চলের স্মৃতিকে অমর করে রাখতে জগন্নাথদীঘির পাড়ে স্মৃতিতোরণ, পাঠাগার, সমাজকল্যাণ কেন্দ্র ও দাতব্য চিকিৎসালয় স্থাপনের স্বপ্ন ২৪ বছরেও বাস্তবায়ন হয়নি। ১৯৯৩ সালে এখানে ওইসব প্রতিষ্ঠান স্থাপনের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হলেও এখনো এর কোনো কার্যক্রমই শুরু হয়নি। এলজিউডির তত্ত্বাবধানে এগুলো স্থাপন হবার কথা ছিল।
জগন্নাথদীঘি মুক্তাঞ্চল স্মৃতি পরিষদের নেতাদের মতে, সরাসরি যুদ্ধের মাধ্যমে এটিই বাংলাদেশের প্রথম মুক্তাঞ্চল। স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে (১৯৭১ সালের ১১ নভেম্বর) চৌদ্দগ্রামের জগন্নাথদীঘি ইউনিয়নের বেতিয়ারায় মুক্তিবাহিনীর ৯ গেরিলা যোদ্ধা শহীদ হলে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে মুক্তিবাহিনীর আক্রমণ তীব্র হয়। ফলে ২৭ নভেম্বর শেষ রাতে সম্মুখযুদ্ধে জগন্নাথদীঘির পাড়ে অবস্থিত পাক বাহিনীর ক্যাপ্টেন জংয়ের ঘাটির পতন ঘটে। জংয়ের ঘাটির পতনের মাধ্যমে জগন্নাথদীঘি ইউনিয়নের উত্তর দক্ষিণে ১০ কিলোমিটার বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম শত্রুমুক্ত হয়। পরদিন সকাল ১০টায় মুজিবনগর সরকার নিয়ন্ত্রিত ভারতের ত্রিপুরায় অবস্থিত বড় টিলা ক্যাম্পে মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে আরও ১৬ জন মুক্তিযোদ্ধাসহ তৎকালীন কুমিল্লার ৪ গণপরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট মীর হোসেন চৌধুরী, আবদুল আউয়াল, হাজি আলী আকবর মজুমদার ও জালাল আহমেদের উপস্থিতিতে জংয়ের ঘাঁটি ইপিআর ক্যাম্প বর্তমানে জগন্নাথদীঘি বিজিবি ক্যাম্পও আনুষ্ঠানিকভাবে পতাকা উত্তোলন করে কার্যকরভাবে দখল গ্রহণ করেন মুক্তিযোদ্ধারা। মুজিবনগর সরকার তাৎক্ষণিক ওই এলাকাকে মুক্তাঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।
এ ব্যাপরে জগন্নাথদীঘি মুক্তাঞ্চল স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ও বড়টিলা ক্যাম্পের সাবেক চিফ বীর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, প্রতি বছর জগন্নাথদীঘি মুক্তাঞ্চল দিবস পালন করা হয়। এর স্মৃতিকে ধরে রাখতে শিগগিরই পাঠাগার, সমাজকল্যাণ কেন্দ্র ও দাতব্য চিকিৎসালয় স্থাপনের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!