নিজাম হাজারীর এমপি পদের বৈধতা নিয়ে রায় ১ মার্চ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফেনী-২ আসনের আওয়ামী লী‌গ দলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) নিজাম উদ্দিন হাজারীর পদে থাকা নিয়ে রুলর রায় ঘোষণার জন্য আগামী ১ মার্চ দিন নির্ধারণ করেছে হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকীর একক বেঞ্চ এই দিন ঠিক করেন।

আদালতে নিজাম হাজারীর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ ও নুরুল ইসলাম সুজন। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন কামরুল হক সিদ্দিকী ও সত্যরঞ্জন মন্ডল।

এর আগে ৬ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকীর একক বেঞ্চে মামলাটি কার্যাতালিকায় ওঠে। এরপর কয়েক দিন শুনানিও হয়।

আইনজীবী সত্যরঞ্জন জানান, আজ শুনানি শেষ হয়েছে। রায়ের জন্য ১ মার্চ দিন রে‌খে‌ছেন আদালত।

গত ১৫ জানুয়ারি বিচারপতি ফরিদ আহাম্মদের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রিটের শুনানি নিতে বিব্রত প্রকাশ করে মামলার নথি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানোর আদেশ দেন।

নিজাম হাজারীর কারাভোগ নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ‘সাজা কম খেটেই বেরিয়ে যান সাংসদ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রতিবেদন যুক্ত করে রিট আবেদন দাখিল করা হয়। অস্ত্র মামলায় সাজা কম খাটার অভিযোগ এনে নিজাম হাজারীর সংসদ সদস্য পদে থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়া।

এ রিট আবেদনে ২০১৪ সালের ৮ জুন হাইকোর্ট এক আদেশে ফেনী-২ আসন কেন শূন্য ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে।

২০১৬ সালের ৬ ডিসেম্বর নিজাম হাজারীর পদে থাকার বৈধতা নিয়ে জারি করা রুলের বিভক্ত রায় দেয় বিচারপতি মো. এমদাদুল হক ও বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. এমদাদুল হক তার রায়ে রুল মঞ্জুর করে নিজাম হাজারীর পদে থাকাকে অবৈধ ঘোষণা করেন। আর কনিষ্ঠ বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান এ বিষয়ে করা রিট ও রুল খারিজ করে দেন। পরে কয়েকটি একক বেঞ্চ ঘুরে মামলাটি বিচারপতি ফরিদ আহমেদের কাছে পাঠানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.