1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ভোলাগঞ্জে শ্রমিকের জীবিকা নির্বাহের দাবীতে মানববন্ধন হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর শিক্ষা সমগ্র মানব জাতির জন্য অনুসরণীয়…রাষ্ট্রপতি সিন্ডিকেট করে পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করার চেষ্টা করলে ছাড় দেওয়া হবে নাঃ প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী জাফলং ট্যুরিস্ট ক্লাবের ২৩ সদস্য কার্যকরী কমিটি গঠন‌ ফ্রান্সে মহানবীর অবমাননার প্রতিবাদে সিলেট ঐতিহ্যবাহী শাহী ঈদগা মানববন্ধন স্বাধীনতা পুরস্কার ২০২০ প্রদান করলেন… প্রধানমন্ত্রী জকিগঞ্জের গঙ্গারজল এলাকায় ১৫’শ ১ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কোম্পানীগঞ্জে যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূর ওপর নির্যাতন শহরের সুবিধা এখন গ্রামেই হবে মন্ত্রী ইমরান আহমদ লালমাইয়ে এইউইও ইব্রাহিম এর বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান

তাৎপর্যের মাস রজব

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২১ মার্চ, ২০১৮
  • ৪ বার পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট : আরবি মাসের মধ্যে অন্যতম তাৎপর্যপূর্ণ মাস হচ্ছে রজব। এ মাসের কথা বহু হাদিসে বর্ণিত হয়েছে। মহানবী (সা.) বলেছেন, ‘রজব মাস হচ্ছে মহান আল্লাহর কাছে অত্যন্ত গুরুত্ববহ একটি মাস, ফজিলতের দিক থেকে রমজানের পর অন্য কোনো মাস এর সমপর্যায়ের নয়। এ মাসে কাফেরদের সঙ্গেও যুদ্ধ করা হারাম।

রজব মাস আল্লাহর মাস, শাবান মাস আমার মাস এবং রমজান মাস হচ্ছে আমার উম্মতের মাস। যে ব্যক্তি রজব মাসের একটি দিন রোজা রাখে, মহান আল্লাহ তার ওপর সন্তুষ্ট হন, তার প্রতি মহান আল্লহর ক্রোধ দূর হয়ে যায় এবং জাহান্নামের একটি দরজা তার জন্য বন্ধ হয়ে যায়।’

অন্য হাদিসে আছে, ‘রজব মাস হচ্ছে আমার উম্মতের ক্ষমা প্রার্থনার মাস। অতএব, এ মাসে অত্যধিক ক্ষমা প্রার্থনা কর, কেননা মহান আল্লাহ ক্ষমাশীল ও অত্যন্ত দয়ালু।’ রজব মাস এলে নবীজি (সা.) এই দোয়া করতেন, ‘হে আল্লাহ আপনি আমাকে রজব ও শাবান মাসে বরকত দান করুন এবং মহিমান্বিত রমজান মাসে পৌঁছে দিন।’ রজব মাস থেকেই নবীজি (সা.) রমজানের প্রস্তুতিস্বরূপ রোজা রাখা শুরু করতেন। মহানবী (সা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে, ‘যে ব্যক্তি রজব মাসের রাতগুলোর একটিতে (দুই রাকাত করে) নির্দিষ্ট একটি নিয়মে ১০ রাকাত নামাজ আদায় করবে, মহান আল্লাহ তার গুনাহ মাফ করে দেন।

নামাজ আদায়ের পদ্ধতিটি হলো প্রতি রাকাতে সুরা ফাতেহার পর একবার সুরা কাফিরুন এবং তিনবার সুরা এখলাস যুক্ত করে পড়া’। এছাড়া বিভিন্ন হাদিসে রজব মাসের ফজিলত ও আমলের কথা বর্ণিত হয়েছে। মোটকথা, পবিত্র রমজান মাসের প্রস্তুতি গ্রহণ করার মাস হিসেবে রজব মাস মুসলমানদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস। এজন্য সবার উচিত প্রিয় নবীজির (সা.) আদর্শ অনুসরণ করে এই মাসটিকে যথার্থভাবে আমলে কাটানোর চেষ্টা করা।

রাসুলের (সা.) মতো রমজান মাসের প্রস্তুতি গ্রহণস্বরূপ রোজা রাখার আমল করা। রজবের প্রস্তুতির ওপর নির্ভর করে রমজানের প্রস্তুতি। যারা রজব মাস থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করতে পারবেন তারাই রমজান কাটাতে পারবেন পুরোপুরি হক আদায় করে। এছাড়া রজব মাসের মহিমান্বিত রাত লাইলাতুল মেরাজে ইবাদত-বন্দেগি করে কাটানোও মুমিনের দায়িত্ব। আল্লাহ আমাদেরকে সে তাওফিক দান করুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!