‘ডুব’ লাভের মুখ দেখবে তো?

বিনোদন ডেস্ক : মুক্তির আগেই বেশ সাড়া ফেলেছিল নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর চলচ্চিত্র ‘ডুব’। ছবির কাহিনি নিয়ে ছিল বিতর্কও। ফলে সেন্সর ছাড়পত্র পেতে গিয়ে কিছুদিন আটকে ছিল ছবিটি। এসব ঘটনায় ছবিটি বেশ আগ্রহ তৈরি করেছিল দর্শকদের মধ্যে। কিন্তু মুক্তির পর সিনেমা হল থেকে যে রেভিনিউ আসছে তাতে সংশয় বাড়ছে- লাভের মুখ দেখবে তো বড় বাজেটের ‘ডুব’!

গত শুক্রবার বাংলাদেশসহ তিন দেশের ৮১টি হলে মুক্তি পায় ছবিটি। এর মধ্যে দেশের ৩৯টি হলে প্রদর্শিত হচ্ছে ছবিটি।

জানা গেছে, জীবনীভিত্তিক নাট্যচলচ্চিত্র ডুব নির্মাণে ব্যয় হয় ১২ কোটি টাকা। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এই ব্যয় বেশিই বলা চলে। কিন্তু ছবি মুক্তির পর দেশের প্রধান দশটি হলের প্রথম দিনের আয়ের যে হিসাব, তাতে বিনিয়োগ ওঠে আসা নিয়েই সংশয়ের সৃষ্টি হচ্ছে।

যশোরের ঐতিহ্যবাহী মণিহারসহ ১০টি সিনেমা হলে ‘ডুব’ ছবি মুক্তির প্রথম দিনের সেল রিপোর্ট বলছে, ঢাকার বাইরের হলগুলোর সেল খুব একটা আশাব্যঞ্জক ছিল না।

ডুব সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র থেকে জানা যায়, সিলেটের নন্দিতা সিনেমা হল থেকে প্রথম দিনের চারটি শো থেকে এসেছে ৪৭ হাজার টাকা। জয়দেবপুরের বর্ষা থেকে ২৬ হাজার, গাজীপুরের চম্পাকলি থেকে ৬১ হাজার ৮১৫, রংপুরের শাপলায় ৩৩ হাজার, দিনাজপুরের মর্ডান হলে ৪৫ হাজার, পাবনার বীণা হলে ২৪ হাজার ৭০০, নারায়ণগঞ্জের নিউ মেট্রোতে ৪১ হাজার, যশোরের মনিহার সিনেমা হলে ৭৫ হাজার, সিরাজগঞ্জের মমতাজ সিনেমা হলে নিট বিক্রি হয়েছে ১৩ হাজার টাকা। কিন্তু খুলনার লিবার্টি হলে টিকিট বিক্রি হয়েছে মাত্র ৪ হাজার ২০০ টাকার।

অন্যদিকে ছবিটি যেহেতু বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত ও অস্ট্রেলিয়াতে মুক্তি দেয়া হয়েছে সে ক্ষেত্রে একটু স্বস্তিতে থাকতেই পারেন ফারুকী। তবে তাতেও থেকে যাচ্ছে কয়েকটি প্রশ্ন। অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থানরত প্রবাসী বাঙালিরা ‘ডুব’ নিয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছে তো? কলকাতার দর্শকরাই বা ছবিটি নিয়ে কতটা আগ্রহ দেখাচ্ছে? ভারতীয়দের মধ্যে দেশপ্রেম যতটা গভীর, সেই হিসেবে অন্য দেশের ছবি দেখতে তারা হলে যাচ্ছে তো?

ভারতের ৩৪টি ও অস্ট্রেলিয়ার ৮টি হলে দেখানো হচ্ছে ‘ডুব’। এরপর প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা বাড়বে বলে জাজ মাল্টিমিডিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়। খুব শিগগির আমেরিকা, ফ্রান্স, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়াতেও ছবিটি মুক্তি দেয়া হবে বলে জানায় তারা।

‘ডুব’ যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং কলকাতার এসকে মুভিজ। এ ছাড়া সহ-প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন বলিউড অভিনেতা ইরফান খান। ছবিটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ও করেছেন তিনি।

ছবিটির বিভিন্ন চরিত্রে আরও আছেন কলকাতার নায়িকা পার্ণো মিত্র, বাংলাদেশের নুসরাত ইমরোজ তিশা ও রোকেয়া প্রাচী।

এর আগে ‘ডুব’ছবির নির্মাণ নিয়ে পানি কম ঘোলা হয়নি। পরিবারের কারো অনুমতি না নিয়েই নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের জীবনীর ওপর তৈরি করা হয়েছে ‘ডুব’। এমনটা দাবি করে ছবির মুক্তিতে আপত্তি জানিয়েছিলেন হুমায়ূনপত্নী মেহের আফরোজ শাওন।

শাওনের আপত্তির মুখে ছবিটিকে কোনো রকম মুক্তি না দিতে আদেশ দেয় তথ্য মন্ত্রণালয়। পরে অবশ্য বিভিন্ন রকম যাচাই-বাছাই শেষে এবং বেশ কিছু দৃশ্য কর্তন করে গত ৮ আগস্ট সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পায় ছবিটি। এরপর গত ২৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় ‘ডুব’-এর অফিসিয়াল ট্রেলার। ঠিক এক মাসের মাথায় মুক্তি পায় ছবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!