টিউমার রোগে আক্রান্ত মমতাজকে পাঠানো হচ্ছে রমেকে

গাইবান্ধা সংবাদদাতা  : টিউমার রোগে আক্রান্ত গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার বাড়াইপাড়া গ্রামের মমতাজ উদ্দিনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে চিকিৎসকরা।
শনিবার বিকালে গাইবান্ধা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের কর্মকর্তা মো. আখতার হোসাইন মমতাজ উদ্দিনকে তার নিজ বাড়ি থেকে গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানে সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুস শাকুর আলী ও হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. অমল চন্দ্র সাহা ও ডাঃ আর এমও শাহীনের নেতৃত্বে গঠিত একটি মেডিক্যাল বোর্ড মমতাজের টিউমার ও শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর সিন্ধান্ত নেয় মেডিক্যাল বোর্ড।
ছয় বছর ধরে মমতাজ উদ্দিন অর্থের অভাবে চিকিৎসা করতে না পেরে অসহ্য যন্ত্রণায় দুর্বিসহ জীবন-যাপন করে এলেও কেউ তার খোঁজ-খবর নেয়নি। বিভিন্ন মিডিয়া প্রকাশিত সংবাদের সূত্র ধরে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ, প্রশাসন, সমাজসেবা কর্মকর্তা ও প্রতিবন্ধী সংগঠনের নেতারা অনেকে মমতাজ উদ্দিনের খোঁজ-খবর নেন। এছাড়া মমতাজ উদ্দিনের বাড়িতে গিয়ে খোঁজ-খবর ও চিকিৎসার জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন অনেকে।
গাইবান্ধার সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুস শাকুর আলী বলেন, মমতাজ উদ্দিনকে নিয়ে ফেসবুক ও গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর ‘ইউনিসেফ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় তাকে হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতালের চিকিৎসকদের নিয়ে একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। মেডিক্যাল বোর্ড মমতাজ উদ্দিনের টিউমার ও শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে। গাইবান্ধা হাসপাতালে মমতাজের উন্নত চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব নয়। তাই রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মমতাজ উদ্দিনের উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হবে। রংপুর হাসপাতালের পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে মমতাজকে সেখানে পাঠানোর সিন্ধান্ত নেওয়া হয়।’
গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. এস, আই, এম শাহীন বলেন, ‘মমতাজ উদ্দিন লেফট সাইটেট পেরোটিড গ্লান্ডেট (টিউমার) রোগে আক্রান্ত।’মমতাজ উদ্দিনের মা জোহরা বেওয়া বলেন, ‘অনেক কষ্টের পর সাংবাদিকদের জন্য ছেলের চিকিৎসার আশ্বাসের কথা শুনে ভালো লাগছে। মমতাজকে পুরো সুস্থ-স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আনতে স্বাস্থ্য বিভাগ ও সরকারসহ সবার কাছে দাবি জানিয়েছেন তিনি।’
মমতাজ উদ্দিনের বড় ভাই রেজ্জাক উদ্দিন বলেন, ‘চিকিৎসকরা তাকে রংপুর নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। তাদের পরামর্শে তাকে রংপুর নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে। দুই-একদিনের মধ্যে তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে।’
গাইবান্ধা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্রের প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা মো. আখতার হোসাইন বলেন, ‘মমতাজের জন্য সমাজসেবা অধিদফতরের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’
মমতাজ উদ্দিনকে তার নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্টে (মো. মমতাজ উদ্দিন, হিসাব নম্বর ১৩৭১১২০০১৮২৭৫, আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক লিমিডেট, পলাশবাড়ী শাখা, গাইবান্ধা) সাহায্য পাঠানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.