টাইগারদের বিপক্ষে ভারতের সম্ভাব্য একাদশ

ক্রীড়া ডেস্ক:দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলা সবশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-১ ব্যবধানে ড্র করেছে ভারত। ফলে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজটা জিততে মুখিয়ে আছে দলটি। নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি না খেলায় দলের দায়িত্বে রয়েছেন রোহিত শর্মা। এছাড়া দলের গুরুত্বপূর্ণ দুই সদস্য হার্দিক পান্ডিয়া ও জাসপ্রীত বুমরাহও নেই এ সিরিজে। ফলে একাদশে বেশ কিছুই পরিবর্তন নিয়ে নামতে পারে তারা।
কেমন হতে পারে টাইগারদের বিপক্ষে ভারতের একাদশ? দলে তাদের থাকার পিছে যুক্তি কি কি? ডেইলি বাংলাদেশ পাঠকদের জন্য এবারের প্রতিবেদনে থাকছে সেসব তথ্য।
রোহিত শর্মা: অধিনায়ক হিসেবে দলে তার অন্তর্ভুক্তি এমনিতেই নিশ্চিত। এছাড়া কোহলি না থাকায় দলের ব্যাটিং অর্ডারে ভরসার প্রতীক হয়ে থাকবেন তিনি। এমনিতে দুর্দান্ত ফর্মে আছে দ্য হিটম্যান। তবে বিশ্বকাপের পর কুড়ি ওভারের ফরম্যাটে খুব একটা দাপট দেখাতে পারেননি তিনি।
শিখর ধাওয়ান: রোহিতের ওপেনিং পার্টনার হিসেবে দীর্ঘদিন ধরেই আছেন শিখর ধাওয়ান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত টি-টোয়েন্টি সিরিজের দুই ম্যাচে এই বাঁ-হাতি ওপেনার করেছেন যথাক্রমে ৪০ ও ৩৬ রান। বড় স্কোর না পেলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন ফর্মে থাকার।
লোকেশ রাহুল: বিরাট কোহলি বিশ্রামে থাকায় কেএল রাহুলই খেলতে পারেন তিন নম্বরে। বিশ্বকাপে ওপেনার হিসেবে খারাপ খেলেননি। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বরাবরই দারুণ খেলেন তিনি। তাকে অহেতুক স্কোয়াডে বসিয়ে রাখা বোকামিই হবে টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য।
শ্রেয়াস আইয়ার: দলে যেটুকু সুযোগ পেয়েছেন তাতে খারাপ করেননি ২৪ বছর বয়সি শ্রেয়াস আইয়ার। ভারতীয় ব্যাটিং অর্ডারে চার নম্বর পজিশনের যথার্থ উত্তরাধিকার হওয়ার সামর্থ্য রয়েছে তার। ক্লাসিক শটের সঙ্গে জোরে মারার ক্ষমতাও রয়েছে এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের।
রিশাভ পান্ট: প্রচুর সম্ভাবনাময় মনে হলেও এখনো নিজেকে প্রমাণ করতে পারেননি রিশাভ পান্ট। তার প্রধান সমস্যা শট বাছাই। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট ছুড়ে দিয়ে আসার প্রবণতা রয়েছে তার। এছাড়া ধারাবাহিকও নন তিনি। তবে এখনো নির্বাচকরা তার উপর ভরসা রাখার সম্ভাবনাই বেশি।
শিভম দ্যুবে: হার্দিক পান্ডিয়া এখনো চোট থেকে সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। সব ঠিক থাকলে তার জায়গায় মারকুটে অলরাউন্ডার হিসেবে প্রথম ম্যাচেই অভিষেক হতে চলেছে শিভম দ্যুবের। ২৬ বছর বয়সি শিভম মূলত হার্ডহিটার। বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান হলেও তিনি বল করেন ডান হাতে।
ক্রুনাল পান্ডিয়া: রবীন্দ্র জাদেজা না থাকায় বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে নিশ্চিত ভাবেই খেলবেন হার্দিক পান্ডিয়ার ভাই ক্রুনাল পান্ডিয়া। অলরাউন্ডার হিসেবে দুই বিভাগেই তার দারুণ দক্ষতা রয়েছে। আইপিএলে ধারাবাহিক থাকার পুরস্কার হিসেবেই খেলছেন জাতীয় দলে। নিজেকে এরই মধ্যে প্রমাণ করেছেন তিনি।
ওয়াশিংটন সুন্দর: পাওয়ারপ্লের বোলার হিসেবে দারুণ ভূমিকা রাখেন ওয়াশিংটন সুন্দর। তার ইকোনমি রেট মাত্র ৬.২৩, যা এই ফরম্যাটে বেশ ভাল। লোয়ার অর্ডারে ব্যাটও করতে পারেন। ফলে তাকে দলে রাখলে বাড়বে ব্যাটিং গভীরতা।
দীপক চাহার: রঞ্জি অভিষেকেই চমকে দিয়েছিলেন এই বোলার। আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে নতুন বলে সুইংয়ের দক্ষতায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন দীপক। ২৭ বছর বয়সি এ পেসার এখন পর্যন্ত খেলেছেন চারটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি। ১৪ গড়ে নিয়েছেন ছয় উইকেট।
যুজভেন্দ্র চাহাল: স্কোয়াডে যুজভেন্দ্র ছাড়াও আরো একজন লেগ স্পিনার রয়েছেন। কিন্তু ২৯ বছর বয়সি চাহালের অভিজ্ঞতাই এগিয়ে রাখছে তাকে। বিশ্বকাপের পর থেকে ফরম্যাটে দলের বাইরে চাহাল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ঘরের মাঠেও স্কোয়াডে ছিলেন না। এই সিরিজ তাই বেশ গুরুত্বপূর্ণ চাহালের জন্য।
খলিল আহমেদ: ভারতীয় দল সবসময়ই ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে একজন বাঁ-হাতি পেসারকে খেলানোর পক্ষপাতী। ফলে স্কোয়াডের আরেক পেসার শার্দুল ঠাকুরের জায়গায় খলিল আহমেদকে মূল একাদশে দেখার সম্ভাবনা রয়েছে।
বাংলাদেশের বিপক্ষে জিততে নিজেদের সেরাটাই দেয়ার চেষ্টা করবে ভারত দল। তবে টাইগার সমর্থকদের প্রত্যাশা, ভারতকে হারিয়ে শুভ সূচনা করবে তারা। শেষ কিছু ম্যাচের দিক থেকে দারুণ লড়াইয়ের আশা করছে ক্রিকেটভক্তরা।