জোড়া লাগা টিনা-মিনাকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় পরিবার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গা শহরের উপশম নার্সিং হোমে বুকের সাথে বুক জোড়া লাগনো জমজ কন্যা সন্তানের জন্ম হয়েছে । জোড়া লাগানোর কন্যা সন্তান প্রসব করেছে চুয়াডাঙ্গার রেল কলোনীর অটোচালক দরিদ্র মামুন হোসেন অনিকের স্ত্রী সাথী আক্তার চিন্তা। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চুয়াডাঙ্গা উপশম নার্সিং হোমে সিজারের মাধ্যমে এই জমজ কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। জোড়ালাগা কন্যা সন্তান দুটি ও মা চিন্তাসহ তিনজনই সুস্থ্য আছে। এদিকে জোড়া সন্তান হওয়ার খবর শহরে ছড়িয়ে পড়লে উপশম নার্সিং হোমে উৎসুক জনতার ভিড় জমে। মা চিন্তা ও বাবা অনিক জোড়া লাগা সন্তানদের ভবিষৎ নিয়ে পড়েছে চরম দুঃশ্চিন্তায়। তাদের নুন আনতে পান্থা ফুরায় সংসারে চার বছরের এক কন্যা সন্তানের পর দ্বিতীয়বার ভেবেছিল পুত্র সন্তান হবে। রবিবার চিন্তার প্রসব ব্যাথা উঠলে গাইনি চিকিৎসক ডা. জিন্নাতুল আরার ক্লিনিকে সিজার করা হয়। সিজারকালে সন্তানের অবস্থান দেখে ডাক্তার জিন্নাতুল আরা ও এনেসথেসিয়া চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম অবাক হন,গর্ভে দুটি কন্যা সন্তান তবে একে অপরের বুক ও পেটের সাথে জোড়া লাগানো রয়েছে। বর্তমানে মা ও দুই জোড়ালাগা সন্তান সুস্থ্যই রয়েছে। তবে মানসিক অসুস্থ্য রয়েছে মা চিন্তা ও বাবা অনিক । এদিকে গাইনি ডাক্তার জিন্নাতুল আরা জানান, একজন সামান্য অটো চালকের ঘরে এমন অসভাবিক জোড়ালাগা দুটি কন্যা সন্তান যা তাদের জন্য গভীর চিন্তার বিষয়। কারণ যদিও শিশুদুটি ও তাদের মা সুস্থ্য রয়েছে তার পরেও এমন শিশুদের বুকের সাথে জোড়ালাগা ছাড়াও তাদের আভ্যন্তরীন সমস্যা আছে কিনা তার জন্য দেশের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বিশেষ করে ঢাকায় নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করাতে হবে। তবে সে ক্ষেত্রে অনেক টাকার প্রয়োজন, যা এই দরিদ্র মাতা পিতার পক্ষে,জোগাড় করা সম্ভব হবে না,এক্ষেত্রে সমাজকে আগিয়ে আসতে হবে। জোড়ালাগা সন্তানের পিতা মামুন হোসেন অনিক বিত্তবান ব্যক্তি ও সরকারের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে । সে জানায় তার সন্তানের উন্নত চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্য ছাড়া তার পক্ষে তাদের বাঁচানো আদৌ সম্ভব না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!