1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০১:২০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
খাসোগি ইস্যুতে ৭৬ সৌদি নাগরিকের ভিসা নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের ঢাকা-ওয়াশিংটন জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করবে ‘প্রবীণদের জীবনমান উন্নয়নে সামাজিক নিরাপত্তার পরিধি বাড়ানো হয়েছে’ জিয়ার অবদান অস্বীকার করা মানে স্বাধীনতাকেই অস্বীকার করা….মির্জা ফখরুল বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে বড় পতন, ৮ মাসে সর্বনিম্ন বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে আসছে প্রধানমন্ত্রী আর্থসামাজিক উন্নয়নে পরিসংখ্যানের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ…. রাষ্ট্রপতি ঢাকা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে শেয়ারবাজার কারসাজির বিরুদ্ধে অকুতোভয় যোদ্ধা ছিলেন তিনি সাবেক ডেপুটি গভর্নর ইব্রাহিম খালেদ আর নেই

জলডুগি’র চাষ জনপ্রিয়তা পেয়েছে নরসিংদীতে

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৩ জুন, ২০১৭
  • ৩৩ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদী প্রতিনিধি : জলডুগি আনারস চাষে জনপ্রিয়তা বাড়ছে নরসিংদীতে।এই জাতের আনারস আকারে ছোট হলেও খেতে সুস্বাদু। এ কারণে ক্রেতাচাহিদাও বেশ। অন্যদিকে ফলনও ভাল।
নরসিংদীতে বাণিজ্যিকভাবে আবাদ হওয়া এই জলডুগির আরেকটি নাম হানিকুইন। দু’নামেই এই আনারসটি পরিচিত। ক্রেতাদের চাহিদা ও ফলন ভালো হওয়ায় এই জেলায় গড়ে উঠছে আনারসের নতুন নতুন বাগান ।
কৃষকরা জানান, সাধারনত পাহাড়ি লাল এঁটেল মাটি আনারস চাষের উপযোগী। নরসিংদীর পলাশ, শিবপুর ও বেলাব উপজেলায় কমবেশি আনারস উৎপন্ন হলেও জেলার উৎপাদিত আনারসের ৯০ ভাগই উৎপন্ন হয় পলাশ উপজেলায়। পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়নের রাবান,বরাবো,সাতটেকিয়া ও পুরাইতলী এলাকা আনারস উৎপাদনের জন্যই সমৃদ্ধ। কেবল আনারস চাষ করেই এখানের কয়েক শ কৃষক স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছেন।
এলাকাবাসী জানান, ৮ থেকে ১০ বছর আগেও পলাশ উপজেলার লাল মাটির অনেক জমি পতিত অবস্থায় পড়ে থাকতো। কোথাও কোথাও কাঁঠালসহ বিভিন্ন ফলজ গাছের বাগান করা হলেও বাগানের জমিতে চাষ হতো না কোনও ফসল। তবে এখন আর পতিত নেই। বাড়ির আঙিনা, পতিত জমি ও বিভিন্ন ফলের বাগানের জমিতেও বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হচ্ছে দেশীয় জাতের আনারস।
নরসিংদী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর নরসিংদী জেলায় ৩০০ হেক্টর জমিতে আনারসের চাষ হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় ৫৩ হেক্টর বেশি।
পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়নের বরাবো গ্রামের চাষি প্রমোদ দে জানান, সময়মতো চারা,সার ও প্রয়োজনীয় উপকরণের যোগান পাওয়ায় অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছর আনারসের ফলন ভাল হয়েছে।
একই উপজেলার কুড়াইতলী গ্রামের আনারস চাষি সুনীল দাস জানান, আনারস চাষে নিয়মিতভাবে তেমন শ্রম দিতে হয় না। চারা রোপনে পুঁজি বিনিয়োগের তুলনায় লাভ বেশি পাওয়া যায়। প্রতি পিস আনারস ১০ থেকে ১৫ টাকায় জমি থেকেই কিনে নিয়ে যান পাইকারি ক্রেতারা।
কাটাবেড় গ্রামের চাষি প্রদীপ দাস জানালেন, কাঁঠাল বাগান, আম বাগান, লটকন বাগান ও লিচু বাগানের মধ্যেও আনারসের চাষ করা যায়। ফলন শুরু হলে আনারস ও চারা বিক্রি করে লাভবান হওয়া যায়।
বেলাব উপজেলার বাঙ্গালগাঁও গ্রামের ফরিদ উদ্দিন জানান, এ বছর তিনি তার ২৫ বিঘা জমি থেকে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকার আনারস বিক্রি করতে পারবেন। চারার সংখ্যা বাড়তে থাকায় আগামী বছর একই জমি থেকে ১০ লাখ টাকার আনারস বিক্রি করা যাবে।
নরসিংদীর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর উপ-পরিচালক লতাফত হোসেন জানান, কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে আনারসের চাষ বৃদ্ধিতে চাষিদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতা ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। প্রতি বছরই নতুন নতুন আনারস বাগান গড়ে উঠছে। এ বছর সাড়ে ৩ হাজার মেট্রিক টন আনারস উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। সরকারি বেসরকারি উদ্যোগে এসব আনারস সংরক্ষণ করা গেলে বিদেশেও রফতানি করা সম্ভব হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!