1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. sharifnews24@gmail.com : sharif ahmed : sharif ahmed
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪০ পূর্বাহ্ন

ছাত্রীদের পক্ষে প্রতিবাদ করে নিজেই ‘হলছাড়া’ ঢাবি ছাত্র

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে

ঢাবি প্রতিনিধি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলের তিন ছাত্রীকে অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়ার প্রতিবাদ করতে গিয়ে হলের শয্যা হারিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়াসিন আরাফাত।

ইয়াসিন স্যার এফ রহমান হলে ৪০৭ নম্বর কক্ষে থাকতেন। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সুফিয়া কামাল হল থেকে নিজের হলে ফেরার পর তাকে হল ছেড়ে চলে যেতে বলেন ছাত্রলীগের নেতারা।

এখন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটের একটি হলে পরিচিত এক ‘বড় ভাইয়ের’ কাছে আছেন ইয়াসিন। জানান, হল থেকে বের হয়ে এলেও তিনি তার জিনিসপত্র নিতে পারেননি। আর এখন বুয়েটের কোন হলে আছেন, নিরাপত্তার কারণে সেই হলের নাম জানাতে চাননি তিনি।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কবি সুফিয়া কামাল হলের বেশ কয়েকজন ছাত্রীকে হলত্যাগে বাধ্য করার অভিযোগ উঠে হল প্রশাসনের বিরুদ্ধে। অভিভাবকদের ডেকে পাঠিয়ে তাদের হাতেই তুলে দেয়া হয় ছাত্রীদের।

এর প্রতিবাদে রাত দেড়টার দিকে ইয়াসিন একাই প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে হলের ফটকে অবস্থান নেন। পরে রাত দুইটার দিকে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করা সংগঠন ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ এর নেতারা ইয়াসিনের সঙ্গে যোগ দেন। তাঁরাও সেখানে বিক্ষোভ করেন।

পরিষদের নেতারা শুক্রবার বিকাল চারটায় বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করলে রাতের অবস্থান কর্মসূচি শেষ করেন আরাফাত। তারপর হলের দিকে ফেরত যান বিক্ষোভকারী সবাই।

কিন্তু এফ রহমান হলে ঢুকার সময় ফটকে হল ছাত্রলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসানসহ অনেকে অবস্থান নিয়ে তাকে বাধা দেন।

ইয়াসিন আরাফাত বলেন, ‘ছাত্রলীগের মাধ্যমেই হলে উঠেছিলাম। প্রতিবাদ করে ফেরার পর ছাত্রলীগের নেতারা আমাকে ডাকেন। বিক্ষোভে কেন গেলাম, তা জানতে চান। হলে উঠলে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির দায়িত্ব নেবেন না বলে জানিয়ে দেন।’

‘এছাড়া নানা হুমকি দেওয়া হয়। আমাকে চলে যেতে বলা হয়। আমাকে রুমে রাখার জন্য রুমমেটকে শাসানো হয়।’

তবে ইয়াসিনকে বের করে দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এফ রহমান হল ছাত্রলীগের সভাপতি হাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকটা মানুষের নিজস্ব চিন্তা চেতনা আছে এবং সে তা চর্চা করবে। আর বিশ্ববিদ্যালয় হল সে চেতনা চর্চার কেন্দ্র্র। এইখানে আমি বাধা দেওয়ার কেউ না। তবে শিক্ষার্থীদের এই চিন্তা চেতনা যাতে স্বাধীনতাবিরোধী না হয় সেদিকে আমরা সবসময় খেয়াল রাখি।’

হল গেইটে ইয়াসিনের সঙ্গে কী কথা হয়েছিল জানতে চাইলে হাফিজ বলেন, আমি তার রুম নাম্বার জিজ্ঞেস করেছিলাম। এবং জিজ্ঞেস করেছিলাম তাদের পরবর্তী প্রোগাম কখন।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তুষার ইয়াসিনের বিষয়টিতে কিছু জানা নেই বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, ‘এই নামে আমি তো কাউকে চিনিই না। হল থেকে বের করব কীভাবে?’।

তবে হল শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা জানান, হলে ঢোকার সময় গেইটে ইয়াসিনের সঙ্গে অনেকক্ষণ কথা বলেন হলের কয়েকজন নেতা। পরে তাকে হল থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করেন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার)
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

প্রধান উপদেষ্টা : ডা: জাহাঙ্গীর হোসেন ভূঁইয়া
উপদেষ্টা : জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা : এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা : শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা : অবসরপ্রাপ্ত জামিল আর্মি,

© All rights reserved © 2019 LatestNews
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!