1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন

চুয়াডাঙ্গায় টানা ৭ দিনের বর্ষনে আক্রান্ত হয়েছে ১২০ হেক্টরঃ জমির ফসল

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০১৭
  • ৬ বার পড়া হয়েছে

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি  : টানা এক সপ্তাহ বিরামহীন বর্ষনে চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরসহ দামুড়হুদা, জীবননগর ও আলমডাঙ্গায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। কোথাও কোথাও ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানিবন্দি অবস্থায় পড়েছে অনেক পরিবার । তলিয়ে গেছে ধান, বেগুন, ঝালসহ পটোলক্ষেত। গরু-ছাগল নিয়েও বিপাকে পড়েছে কৃষকরা। জেলায় আক্রান্ত হয়েছে ১২০ ঘেক্টর জমির ফসল।
জেলার দামুড়হুদা উপজেলা শহরের গ্রামীণ টাউয়ারের সামনের পিচরোডটি হাঁটু সমান পানিতে তলিয়ে গেছে। ওই নোংরা পানি মাড়িয়ে এলাকার শ শ মুসল্লিদের মসজিদে নামাজ পড়তে যেতে হয়। এছাড়া কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের ওই রাস্তা দিয়ে বই খাতা নিয়ে স্কুলে যাতায়াত করতে গিয়ে পড়তে হয় চরম সমস্যায়। ওই সড়কটি বিগত কয়েক বছর ধরে খানাখন্দে ভরে নোংরা পানি জমে থাকলেও সংস্কারের নেই কোনো উদ্যোগ। এলাকার সচেতন মহলের অনেকেই চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, ওই রাস্তা দিয়ে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রতিনিয়ত যাতায়াত করলেও কারো যেন কোনো মাথাব্যথা নেই। রাস্তাটি জরুরি ভিত্তিতে সংস্কারের দাবি তুলেছেন ভুক্তভোগী এলাকাবাসী। এছাড়াও জেলায় টানা ৭ দিনের বর্ষনে ১২০ হেক্টরঃ জমির ফসল আক্রান্ত হয়েছে।
চুয়াডাঙ্গা জেলা কৃষি সম্প্রসারনের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) প্রবির কুমার বিশ্বাস জানান, এবারের টানা বর্ষনে জেলায় ৫০হেক্টর জমির বোরোধান ৬০ হেক্টর আউষ ধান ও ১০ হেক্টর জমির ফসল আক্রান্ত হয়েছে। বর্ষা থেমে গেলে দ্রুত পানি সরে গেলে আক্রান্তের পরিমান আরো কমে আসবে। এছাড়াও বর্ষা অব্যাহত থাকলে আক্রান্তের পরিমান আরো বেড়ে যাবে।

দামুড়হুদা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুফি মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জানান,ক্ষয় ক্ষতির পরিমান ফসল উঠার আগে বলা না গেলেও এলাকার নিচু জমির আউষ ধান, বোরো ধান, ঝাল, পটল, ও পাট ক্ষেত আক্রান্ত হয়েছে। তবে এখনই পানি কমে গেলে আক্রান্ত ফসলের পরিমান কমে যাবে।
দামুড়হুদার হাউলি গ্রামের চাষি আবু বকর জানান, এলাকায় ঝাল চাষিদের সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে। টানা বর্ষনে যেসব ঝাল ক্ষেতে পানি বেধে গিয়েছে বর্ষা থেমে গেলেও সে সব ক্ষেত রক্ষা করা যাবে না। ঐ সব ক্ষেতের পানি সরে যাওয়ার পর মাটি শুকানোর সাথে সাথে ঝাল গাছের শিকড় পচে গাছ মারা যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!