1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পাকিস্তান ও চীনা প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সফরে দ্বিপক্ষীয় প্রতিরক্ষা চুক্তি শুরু হলো বিজয়ের মাস ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে অপরাজনীতির দাতভাঙ্গা জবাব সিলেট জেলা যুবলীগ। বঙ্গবন্ধু লেকচার সিরিজের আয়োজন করছে …পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘মাস্ক না পরলে জেলও হতে পারে’ রেল যোগাযোগ আরো সম্প্রসারিত করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার…প্রধানমন্ত্রী উন্নয়ন অগ্রযাত্রা চলমান করোনার মধ্যেও সব খাতে …এলজিআরডি মন্ত্রী গৃহবধু তামান্না হত্যার মূল হোতা স্বামী আল মামুন এখনো পুলিশের ধরাছোয়ার বাইরে রয়েছে ফেসবুকে অপপ্রচারের জিডি করায়, কুমিল্লায় যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা এবার চীনে করোনার পর নরোভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

চীনের সেই গ্রামবাসী বাইডেনকে এখনো মনে রেখেছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০
  • ৯ বার পড়া হয়েছে

২০০১ সালে চীন সফরে গিয়ে রাজধানী বেইজিংয়ের কাছে থাকা ছোট একটি গ্রাম ভ্রমণ করেছিলেন এক বিদেশি। দুই দশক পর তিনিই এখন যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ব্যক্তি হতে যাচ্ছেন। তবে দীর্ঘ দিন কেটে গেলেও সেই বিদেশি ভ্রমণকারীকে ভুলেননি সেই গ্রামটির লোকজন।
জো বাইডেন ছিলেন তখন সিনেটের পররাষ্ট্র সম্পর্কীয় কমিটির প্রধান। চীন সফরে গিয়ে ইয়ানজিকাউ নামের একটি গ্রামে বিরতি নেন। সেখানকার মানুষের সঙ্গে তিনি কথা বলেন ও শিশুদের জন্য আইসক্রিম কেনেন।

গ্রামের বাসিন্দা তাং শাওজুনের বয়স তখন ছিল ২১। বাইডেন যখন তার বাড়িতে কড়া নাড়েন, তখন দুই মাসের বাচ্চাকে যত্ন করছিলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের সেই সফর গ্রামীণ চীনের জন্য এক বিরল দৃশ্যপট। শাওজুন বলেন, আমাদের জীর্ণশীর্ণ বাড়ি ছিল দরিদ্রতায় জর্জরিত। যে কারণে তিনি আমাদের এখানে আসার সিদ্ধান্ত নেন।

তবে সেই বাড়ি এখন আর আগের অবস্থায় নেই। তা নতুন করে নির্মাণ করা হয়েছে। বাড়িতে মেহগনিসহ বিভিন্ন কাঠের আসবাবপত্র দেখা গেছে।

শাওজুনের স্বামী লিউ চ্যাংকাই বলেন, তিনি যখন এখানে আসেন, তখন আমাদের বাসায় কোনো ফ্রিজ কিংবা আধুনিক সরঞ্জামাদি ছিল না।

বাইডেন এক হাতে তার শিশুসন্তানকে নিয়ে তাকে চুমু খান। এর পর উপহার হিসেবে রান্নাঘরের মাংস কাটার ছোরার নিচে ২০০ ইউয়ান রেখে যান। যা পরে আবিষ্কার করেন তারা।

শাওজুন বলেন, ভবিষ্যতে আবার এখানে আসার কথা বলেছিলেন বাইডেন। আমরা সত্যিই শিহরিত। তখন ভেবেছিলাম, বিদেশিরা অনেক মহান। চীনাদের বিরুদ্ধে তারা কোনো বৈষম্য করে না।

এই চীনা দম্পতি কখনো ভাবতেও পারেননি যে তাদের কাছে আসা এই বিদেশি ভবিষ্যৎ মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত কয়েক দশকে দ্রুত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি চীনকে অনেক বদলে দিয়েছে। দেশটির বহু এলাকা এখন চেনাই যায় না। বহু চালাঘর ভেঙে দু-তিন তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

রীতিমতো অসংখ্য অতিথিশালা গড়ে উঠেছে। চীনের প্রাচীর দেখতে যাওয়া পর্যটকরা এসব জায়গায় অবস্থান করেন।

৫৭ বছর বয়সী লি হুয়া বলেন, এখানে সফরকালে বাইডেনকে খুব বন্ধুসুলভ দেখা গেছে। চীনাদের তিনি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আমি তার কল্যাণ কামনা করছি। বাইডেন এই গ্রাম সফরে আসায় গর্ববোধ করছি।

তিনি বলেন, তারা যদি চীনের সঙ্গে কোনো সমস্যা না করে, তবে ফের এখানে ভ্রমণে আসতে পারেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!