চরম উত্তেজনায় স্পেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : স্পেনের কাতালোনিয়া অঞ্চলের স্বাধীনতা ঘোষণাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা বাড়ছে। স্পেনের সরকার ইতিমধ্যেই কাতালান আঞ্চলিক সরকার ভেঙে দিয়ে পুঁজডেমনকে তার পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তারপরও তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন বলে জানিয়েছেন স্পেনের এক কর্মকর্তা।

অন্যদিকে পুঁজডেমন কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন। মাদ্রিদে কাতালান স্বাধীনতার বিপক্ষে সমাবেশ করেছে স্প্যানিশ জনগণ। কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাকামী নেতা পুজডেমনকে কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষিত নির্বাচনে অংশ নেবার সুযোগ দিতে চায় স্পেন সরকার। যদিও স্বাধীনতার ঘোষণা দেবার দায়ে তাকে আঞ্চলিক সরকার থেকে সরিয়ে দিয়ে কাতালোনিয়ার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে মাদ্রিদ। ক্ষমতায় আনা হয়েছে দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী সোরাইয়া সান্তামারিয়াকে।

আগে থেকে ধারণ করা এক টেলিভিশন ভাষণে পুঁজডেমন বলেন, দেশটির স্বাধীনতা ঘোষণার পর থেকে উত্তেজনা আরও বাড়তে থাকে।

ভাষণটি কাতালান টিভিতে শনিবার বিকেলে প্রচার করা হয়। এর আগেই শুক্রবার স্পেনের প্রধানমন্ত্রী ম্যারিয়ানো রাজয় বরখাস্ত করেন পুঁজডেমনকে। ঘোষণা দেন ডিসেম্বরের মধ্যেই নতুন নির্বাচনের। কাতালান পুলিশ প্রধানকে সরিয়ে সেই দায়িত্ব দেয়া হয় দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে।

শনিবারের টেলিভিশন ভাষণে কেন্দ্রীয় সরকারের এমন সিদ্ধান্তে বিরোধিতা করে কার্লোস পুঁজডেমন বলেন যে, তারা কাতালানবাসীর স্বাধীন হবার ইচ্ছার ওপর ভরসা করে এই আন্দোলন চালিয়ে যাবেন। সহিংসতা, অসম্মান ছাড়াই বিজয়ী হবার আশা জানান তিনি।

এদিকে, মাদ্রিদ সরকারের পক্ষ থেকে ডিসেম্বরের নির্বাচনে পুঁজডেমনকে অংশ নিতে আমন্ত্রণ জানানোর কথা বলা হয়েছে। যদিও এও বলা হয়েছে যে বিচ্ছিন্নতাবাদের জন্যে তার বিচার হবে।

শনিবার মাদ্রিদে বিচ্ছিন্নতাবাদের বিপক্ষে সংবিধান ঠিক রাখার দাবিতে বিশাল সমাবেশে অংশ নেন শত শত স্প্যানিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.