গাইবান্ধায় চার পুলিশ হত্যা মামলায় চার্জ গঠন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় চার পুলিশ হত্যা মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে আদালত।

রবিবার দুপুরে গাইবান্ধার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আলী আহম্মেদ এ মামলায় চার্জ গঠন করেন।

মামলায় চার্জ গঠন হলেও দীর্ঘ পাঁচ বছর পরও এই মামলার মূল আসামিদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি মানবতাবিরোধী অপরাধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দেলোয়ার হোসেন সাঈদী ফাঁসির রায় ঘোষণার পর হাজার হাজার জামায়াত-শিবির কর্মী গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে ঘরবাড়ি, দোকান পাট, রেল স্টেশন, পুলিশ ফাঁড়ি, থানাসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে অগ্নিসংযোগ করে।

এছাড়া একই দিন প্রকৌশল অফিস, গোডাউন, তৎকালীন সাংসদ মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের ইসলাম শিপ বিল্ডার্স, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান হাফিজা বেগম কাকলীর বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়।

একই দিন সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও রেল স্টেশনে হামলা করে জামায়াত-শিবির কর্মীরা। ওই সময় তাদের হামলায় নিহত হয় চার পুলিশ সদস্য বাবলু মিয়া, হযরত আলী, তোজাম্মেল হক এবং নাজিম উদ্দিন।

নিহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, রংপুর জেলার পীরগাছা উপজেলার তাম্বুলপুর ইউনিয়নের রহমতচর গ্রামের তোজাম্মেল হোসেন, কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের কিশামত গোবধা গ্রামের হযরত আলী, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের ঠাকুরপাড়া গ্রামের বাবলু মিয়া।

এছাড়া বামনডাঙ্গা রেলস্টেশনে হামলা করে হত্যা করে এক রেলওয়ে পুলিশ সদস্যকে। তিনি হলেন গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার মুক্তনগর ইউনিয়নের খামার ধনারুহা গ্রামের খাজা নাজিম উদ্দিন।

এই ঘটনায় তৎকালীন সুন্দরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আবু হানিফ গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনের জামায়াত দলীয় সাবেক এমপি ও যুদ্ধ অপরাধ মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মাওলানা আব্দুল আজিজ ওরফে ঘোড়ামারা আজিজসহ ৮৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ২ হাজার ৫০০ ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন। দীর্ঘদিন তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ওই হত্যা মামলায় আব্দুল আজিজসহ ২৩৫ জনের নামে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। তবে এই মামলায় আসামিদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হওয়ায় এখন আসামি রয়েছে ২৩৪ জন।

গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মো. শফিকুল ইসলাম শফিক ঢাকাটাইমসকে বলেন, চার পুলিশ হত্যা মামলায় আজ ২৩২ জন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জ গঠন করা হয়েছে। এর মধ্য দুইজন হাজতিসহ ২২৫ জন আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বাকিরা পলাতক রয়েছেন। পরবর্তীতে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.