1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. sharifnews24@gmail.com : sharif ahmed : sharif ahmed
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০০ অপরাহ্ন

খুলনায় তেরখাদা মৎস্য ব্যাবসায়ীকে নির্মমভাবে হত্যা করায় স্থানীয়রা ন্যায়বিচার চেয়ে মানববন্ধন করেছে

কামাল হোসেন জনি :
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

খুলনা জেলার তেরখাদা ​​উপজেলার ছাগলদহ ইউনিয়নের কুশলা উত্তর পাড়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতা ও জমির বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হাতে একজন গরীব মাছ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছিল। ইতোমধ্যে অভিযুক্ত হান্নান মীরসহ দশ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নিহত ইনশান মীর (৪৯) তেরখাদা ​​উপজেলার মৃত হানিফ আলী মীরের একমাত্র ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২১ শে এপ্রিল বুধবার বেলা সাড়ে ৪ টার দিকে খুনের আসামি হান্নান মীর, দ্বীন ইসলামসহ দশজন সহযোগী ইনশান মীরের ছেলের দোকানের পাশের রাস্তায় রড ও হাতুড়ি দিয়ে বুকের বাম দিকে ইনশান মীরকে আঘাত করেন। ।
ঐ সময় ইনশান মীরের ছেলের চিৎকার শুনে লোকজন ছুটে আসে এবং গুরুতর আহত ইনশান মীরকে তেরখাদা ​​উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
মৃত ইনশান মীরের ছেলে মোহাম্মদ সাকিব মীর বাদী হয়ে ২২ শে এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) তেরখাদা থানায় হান্নান মীর (৫৮) এবং অন্য নয়জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। কেস নং ৬, তারিখ ২২/০৭/২১।
অন্য আসামিরা হলেন দীন ইসলাম (২৮), রহমত মীর (২৫), নুর ইসলাম মীর (২৭), ইমন মীর (২০), মাহমুদ শেখ (৬০), ছোটন শেখ (২৮), নিজাম শেখ (৫৮) মজনু শেখ (৪৭), এবং রাজিনা বেগম (২৫)।

নিহতের ছেলে সাকিব মীর এই প্রতিবেদককে অশ্রুসিক্ত চোখে বলেন, “আমার বাবা একজন নিরীহ দরিদ্র মানুষ ছিলেন, তিনি মাছের ব্যবসা করতেন, এলাকায় তার বেশ সুনাম ছিল। তবে ঈদুল আজহার দিন আমার দোকানের কাছে আমার সামনে আমার বাবাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিল। তিনি তার বাম বুকের উপর প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছিলেন এবং পরে তাকে ছুরিকাঘাত ও গুরুতর আহত করা হয়। ”
শাকিব মীর আরও বলেছিলেন, “আমরা বাবাকে হত্যার জন্য হান্নান মীর ও তার পাশবিক সহযোগীদের ফাঁসি চাই, যাতে আর কেউ আমাদের মতো এতিম না হয়।” নিহতের ছেলে বলে যে সে তার দুই ছোট বোন এবং তার মায়ের মুখের দিকে তাকাতে পারছে না।
“আমার জীবনের ও বিপদে রয়েছে কারণ তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার পর থেকে তারা আমাকেও হত্যা করতে পারে” শাকিব মীর আরও বলেন, “আমি অবিবাহিত এবং আমার দুইটি ছোট বোন রয়েছে। মাত্র ৬ বছরের ছোট বোন যিনি তার বাবার কোলে ঘুমিয়েছিলেন। এখন আমার ছোট বোন নিয়মিত কাঁদছে। ”
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তেরখাদা ​​থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলাম এই সংবাদদাতাকে বলেছেন, ইনশান মীরের হত্যার মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং পুলিশ অন্য অভিযুক্ত খুনিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে। গ্রেপ্তারকৃত মামলার ১ নং আসামি হান্নান মীর ও তার ছেলে ইমন মীরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
এদিকে স্থানীয়রা বর্বর হত্যার প্রতিবাদ করে বিচারের দাবি করে। তারা দাবি করে বলে যে ইশান হত্যার দায়ীদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিচারে আনা হোক এবং ন্যায় বিচারের দাবি জানান সরকার ও প্রশাসনের নিকট।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার)
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

প্রধান উপদেষ্টা : ডা: জাহাঙ্গীর হোসেন ভূঁইয়া
উপদেষ্টা : জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা : এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা : শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা : অবসরপ্রাপ্ত জামিল আর্মি,

© All rights reserved © 2019 LatestNews
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!