ক্রয় কমিটির বৈঠকে ১০ প্রস্তাব অনুমোদন

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে স্বাক্ষরিত সাধারণ চুক্তির চুক্তিমূল্যের রাশিয়ান ক্রেডিট অংশের ৫ মিলিয়ন ডলার কম পাওয়া যাচ্ছে। এর ফলে সমপরিমাণ অর্থ সমন্বয়ের একটি প্রস্তাবসহ সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ১০টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে।
বুধবার বিকেলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ বৈঠকে ক্রয় প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে কমিটির সদস্য ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে রাশিয়ান ফেডারেশনের এটমস্ট্রয় এক্সপোর্ট-এর সঙ্গে একটি সাধারণ চুক্তি হয়। ওই চুক্তির আলোকে মোট ১২ হাজার ৬৫০ ডলার ব্যয় ধরা হয়। এর মধ্যে চুক্তির ৯০ শতাংশ অর্থাৎ ১১ হাজার ৩৮৫ বিলিয়ন ডলার রাশিয়ান ঋণ এবং বাকি ১০ শতাংশ অর্থাৎ এক হাজার ২৬৫ বিলিয়ন ডলার বাংলাদেশ সরকার যোগান দেওয়ার কথা। কিন্তু ঋণ চুক্তির শর্ত অনুযায়ী ১১ হাজার ৩৮৫ বিলিয়ন ডলার ঋণ নির্ধারিত হওয়ায় চুক্তিমূল্যের ক্রেডিট অংশে ৫ মিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ ৪০ কোটি টাকা ঘাটতি পড়েছে যা জিওবি থেকে সংকুলান করার জন্য রাশিয়ান ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এটমস্ট্রয় এক্সপোর্ট প্রস্তাব পাঠিয়েছিল। সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে প্রস্তাবটি উপস্থাপন করা হলে তা অনুমোদন দেওয়া হয বলে অতিরিক্ত সচিব জানান।
তিনি বলেন, অনুমোদিত প্রস্তাবের মধ্যে চারটি ক্রয় প্রস্তাবে ব্যয় হবে ৫৭৬ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। এর মধ্যে ৩৮৫ কোটি ৯৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৮ সালের শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক স্তরের (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সন), ইবতেদায়ি, দাখিল, এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল এবং কারিগরি (ট্রেড বই) স্তরের বিনামূল্যেও পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ (কাগজসহ), বাঁধাই ও সরবরাহের দর প্রস্তাব রয়েছে। ২১৭টি লটে সরবরাহকারীরা এসব পুস্তক সরবরাহ করবে।
বৈঠকে কয়েকটি বিদ্যুৎকেন্দ্রের মেয়াদ নবায়ন ও নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে পঞ্চগড় জেলায় ৫০ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের চুক্তি সম্পাদনের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সিঙ্গাপুরভিত্তিক এইট মিনিট এনার্জি সিঙ্গাপুর হোল্ডিংস টু পিটিই লিমিটেড। ২০ বছর মেয়াদে প্রতি ইউনিট কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুতের দাম পড়বে ১০ টাকা ৬৪ পয়সা।
বৈঠকে রাজশাহীর কাটাখালীতে মেসার্স নর্দান পাওয়ার সলিউশন লিমিটেড কর্তৃক স্থাপিত ৫০ মেগাওয়াট সম্পন্ন রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের মেয়াদ আরো ৫ বছর বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রটি থেকে প্রতি ইউনিট কিলোওয়াট ঘণ্টার বিদ্যুতের দাম পড়বে ১১ টাকা ৪০ পয়সা। আগে দাম ছিল ৭ টাকা ৭৮ পয়সা। চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমনুরায় মেসার্স সিনহা পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির ফার্নেস ওয়েলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের মেয়াদও ৫ বছর বাড়ানো হয়েছে। এ কেন্দ্রটি থেকে প্রতি ইউনিট কিলোওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুতের দাম পড়বে ১১ টাকা ১১৬ পয়সা। এ ছাড়াও শিকলবাহায় ১৫ মেয়াদে ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রটি থেকে প্রতি ইউনিট মেগাওয়াট ঘণ্টা বিদ্যুৎ ক্রয়ে ব্যয় হবে ৮ টাকা ২৯৩৩ পয়সা। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে মেসার্স কর্ণফুলি পাওয়ার লিমিটেড।
মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি (জিটিসিএিল) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ফাস্ট ট্রাকভুক্ত প্রকল্প হিসাবে ‘মহেশখালী-আনোয়ারা ৪২ ইঞ্চি ব্যাসের ৭৯ কিলেমিটার গ্যাস সঞ্চালন সমান্তরাল পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্পের’ বিভিন্ন কাজ সম্পাদনের কয়েকটি চুক্তি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে প্রায় ১২৩ কোটি টাকা। একই প্রকল্পে অন্য কযেকটি কাজে ব্যয় হবে ৫৯ কোটি ৮২ লাখ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!