1. redsunbangladesh@yahoo.com : admin : Tofauil mahmaud
  2. mdbahar2348@gmail.com : Bahar Bhuiyan : Bahar Bhuiyan
  3. mdmizanm944@gmail.com : Mizan Hawlader : Mizan Hawlader
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন

কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারীর বিরুদ্বে সেবা বানিজ্যের অভিযোগ

রিপোর্টারের নাম :
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে
নিজস্ব প্রতিবেদক :
কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী (সাঁট মুদ্রাক্ষরিক ও কম্পিউটার অপারেটর) মো: ফেরদাউস আলম চৌধুরীর বিরুদ্ধে সেবার নামে বাণিজ্য ও সেবা প্রার্থীদের হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। চলতি বছরের ২৫ মে এ উপজেলায় তিনি যোগদান করেন।
ভূক্তভোগীদের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নতুন ভোটার হালনাগাত, ভোটার এলাকা পরিবর্তন, আইডি কার্ড হারানো, সংশোধনী সংক্রান্ত ও অনলাইন কপি প্রদানসহ যাবতীয় কাজ করে দেওয়ার জন্য বাড়তি টাকা না দিলে কাজ করেন না ফেরদাউস আলম। উপজেলার বড় সাঙ্গিশ^র গ্রামের প্রবাসী মো: জাহাঙ্গীর আলম ও তার চাচাত ভাই মিলে এসেছিলেন নতুন করে ভোটার হতে। তাদের হালনাগাদ ভোটার হতে তাঁকে দিতে হয় ৬শ’ টাকা। আইডি কার্ডের অনলাইন কপি পেতে উপজেলার মান্দ্রা গ্রামের বিল্লাল হোসেনকে গুনতে হয় ২শ’ টাকা। একই কাজে উপজেলা মৌকারা ইউনিয়নের করাকোট গ্রামের জামাল হোসেনের কাছ থেকে ১শ’ ও আবুল হাশেমের কাছ থেকে ভোটার এলাকা পরিবর্তন বাবদ ২শ’ ৫০ টাকা নেন অফিস সহকারী ফেরদাউস আলম চৌধুরী। এইভাবে এই অফিসে নানা ধরনের সমস্যা নিয়ে আসা সেবা প্রার্থীদের কাছ থেকে প্রতিদিন তিনি হাজার হাজার টাকার ঘুষ বাণিজ্য করে থাকেন। এর বাইরে যেসব লোক তাঁর চাওয়া টাকার চেয়ে কম দিয়েছেন তাদের হতে হয়েছে লাঞ্চিত ও হয়রানির শিকার হতে হয়। তিনি আসার পর থেকে এই অফিস যেন একটি সেবার বাণিজ্য সেন্টারে পরিণত হয়েছে। টাকা ছাড়া এখানে কোন সেবাই মিলছে না।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে এক ব্যক্তির আইডি কার্ড হারানোর আবেদন করতে আসে উপজেলার সাতবাড়ীয়া ইউনিয়নের মেম্বার জয়নাল আবেদীন। তিনি ফেরদাউস আলমের কাছে ব্যাংকে জমা দেয়া টাকার চালান ও থানায় দায়ের করা জিডির কপি জমা দিলে তাঁকে তিনি বলেন এভাবে জমা দিলে আপনী ১ বছরেও আইডি কার্ড পাবেন না। তখন ওই মেম্বার বলেন কিভাবে জমা দিলে দ্রুত আইডিটি পাবো। ফেরদাইস বলেন, আমাকে ১ হাজার ৫শ’ টাকা দিলে আমি ১৫ দিনের মধ্যে আইডি কার্ড এনে দেব। পরে মেম্বার জয়নাল এ বিষয়টি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে জানায়।
এমনকি কুমিল্লা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম কয়েকদিন আগে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় পরিদর্শন করতে আসে। ওই সময় এক সেবা প্রার্থীর কাছে টাকা চাওয়ার বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার নিকট নালিশ করেন ওই ব্যক্তি। ওইসময় জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাঁকে শাসিয়ে যায়। এরকম অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে এই অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ফেরদাউস আলম চৌধুরী শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মুঠোফোনে বলেন, আপনি আগামীকাল আমার সাথে অফিসে এসে দেখা করেন। এছাড়া আমার বিরুদ্ধে খবর প্রকাশ করেও আমার কিছু করতে পারবেন না। আমার ছেলেও সাংবাদিক।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: আব্দুস সালাম বলেন, তার বিরুদ্ধে অনেকগুলো মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। আমি বিষয়টি আমার জেলা অফিসার মহোদয়কে জানিয়েছি। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
কুমিল্লা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে অভিযোগের বিষয়টি আমার জানা আছে। কিন্তু লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

—-সম্পাদক মন্ডলীর

সম্পাদকও প্রকাশক: তোফায়েল মাহমুদ ভূঁইয়া (বাহার
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক: হাজী মোঃ সাইফুল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: কামরুল হাসান রোকন
বার্তা সম্পাদক: শরীফ আহমেদ মজুমদার
নির্বাহী সম্পাদক: মোসা:আমেনা বেগম

উপদেষ্টা মন্ডলীর

সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন মজুমদার,
প্রধান উপদেষ্টা সাজ্জাদুল কবীর,
উপদেষ্টা জাকির হোসেন মজুমদার,
উপদেষ্টা এ এস এম আনার উল্লাহ বাবলু ,
উপদেষ্টা শাকিল মোল্লা,
উপদেষ্টা এম মিজানুর রহমান

Copyright © 2020 www.comillabd.com কুমিল্লাবিডি ডট কম. All rights reserved.
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার
error: Content is protected !!