এই হামলা ‘কুশাসনের জঘন্যতম অধ্যায়’: বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশিষ্ট লেখক এবং বরেণ্য শিক্ষাবিদ মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকে ‘বর্তমান কুশাসনের মধ্যে জঘন্যতম অধ্যায়’ হিসেবে বর্ণনা করেছে বিএনপি। দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘প্রকৃত অপরাধীদের’ বিচার না হওয়ায় সন্ত্রাসীরা রক্তের হোলি খেলায় মেতেছে।

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষাবিদকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার ওপর হামলার পরদিন রবিবার দলের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

একই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন লন্ডনে অবস্থান করা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানও। তবে বিদেশে অর্থপাচার এবং দেশে এতিমদের টাকা আত্মসাতের মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত এই নেতার বক্তব্য প্রকাশে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

শনিবার বিকালে নিজ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এক অনুষ্ঠানের মঞ্চে শত শত শিক্ষার্থীর সামনে ছুরিকাঘাত করা হয় জাফর ইকবালকে। হামলাকারী যুবককে পরে আটক করে ছাত্ররা।

এই হামলার পর পর গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে এক প্রতিক্রিয়ায় হামলার নিন্দা জানিয়ছিলেন মির্জা ফখরুল। পরদিন দলের পক্ষ থেকে দেয়া হলো আনুষ্ঠানিক বক্তব্য।

জাফর ইকবালকে শনিবার রাতেই ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং তিনি শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়ছেন চিকিৎসকরা। তার মাথায় আঘাত লাগলেও খুলি ভেদ করে মগজের ক্ষতি হয়নি বলেও জানিয়েছেন তারা।

এই হামলার নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়েন মির্জা ফখরুল বলেন. ‘ড. জাফর ইকবালের ওপর আক্রমণ বর্তমান কুশাসনের মধ্যে এটি এক জঘন্যতম অধ্যায় হয়ে থাকবে।’

‘যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ে মতো সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের একজন শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে প্রকাশ্য দিবালোকে হত্যাচেষ্টা করা হয়, সেখানে দেশে যে অনিশ্চয়তার অন্ধকার বিরাজ করছে তা সংশয়াতীতভাবে সত্য।’

জাফর ইকবালের মতো একজন স্বনামধন্য লেখককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গুরুতর আহত করা এক সুদূরপ্রসারী চক্রান্তের অংশ বলেও বর্ণনা করা হয় বিবৃতিতে।

যারা জাফর ইকবালকে ছুরিকাহত করেছে তাদেরকে সমাজের শত্রু উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘প্রকৃত অপরাধীদের বিচারহীনতার কারণে জনসমাজে সন্ত্রাসীরা আরও উৎসাহিত হয়ে রক্তখেলায় মেতে উঠেঠে।’

বিএনপি নেতা বলেন, ‘বর্তমান দুঃসময়ে শিল্পী-সাহিত্যিক-বিজ্ঞানী-শিক্ষক-চিকিৎসক-সাংবাদিক-প্রকৌশলী-ছাত্র-শ্রমিক-কৃষক-সরকারি চাকুরেসহ আপামর জনসাধারণ জানমাল বিপন্ন হওয়ার এক চরম ঝুঁকির মধ্যে দিনাতিপাত করছে।’

‘দেশের নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে সবসময় উদ্বিগ্ন। বিদ্যমান অপশাসনে জনগণের জীবনের শান্তি, সুস্থিতি, নিরাপত্তা বজায় রাখা খুব কঠিন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.