ইতালিতেও গণভোটের রায় স্বায়ত্তশাসনের পক্ষে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গণভোটে স্বায়ত্তশাসনের পক্ষে রায় দিলেন ইতালির উত্তরের দুই প্রদেশের জনগন। অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী এই অঞ্চলের মানুষের এ রায় ইতালিতে দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছ।

গত রবিবার ইতালির লোম্বারদিয়া এবং ভেনেতো প্রদেশে স্বায়ত্তশাসনের প্রশ্নে এক গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। গনভোটে লোম্বারদিয়া প্রদেশে প্রায় ৯৫ শতাংশ ভোটার স্বায়ত্তশাসনের অধিকারের পক্ষে রায় দিয়েছেন৷ সেখানে ভোটগ্রহণের হার ছিল ৪০ শতাংশের কিছু বেশি৷

অন্যদিকে ভেনেতো প্রদেশে প্রায় ৫৮ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন৷সেখানে স্বায়ত্তশাসনের পক্ষে ৯৮ শতাংশ ভোট পড়েছে৷

তবে ভেনেতো রাজ্যে এই ভোটগ্রহণের সময় হ্যাকারদের হামলা হয়েছে, এমন সন্দেহের কারণে আনুষ্ঠানিক ফলাফল প্রকাশে বিলম্ব ঘটছে৷দুই প্রদেশের প্রেসিডেন্ট ভোটারদের এই স্পষ্ট রায়ের পর প্রধানমন্ত্রী পাওলো জেন্টিলোনির সঙ্গে স্বায়ত্তশাসনের বিষয়ে আলোচনার ঘোষণা করেছেন৷ মূলত রোমে ফেডারেল সরকারের সম্মতি নিয়েই এই গণভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ গণভোটের রায় কার্যকর করার কোনো আইনি বাধ্যবাধকতাও নেই৷

ইতালির উত্তরের এই দুই প্রদেশ অর্থনৈতিক মাপকাঠিতে অত্যন্ত সমৃদ্ধ৷ এই দুই প্রদেশ দেশের অর্থনৈতিক উৎপাদনশীলতার প্রায় ৩০ শতাংশের অংশীদার।কর ও রাজস্বের একটা বড় অংশ ফেডারেল সরকারের হাতে তুলে দিতে আর প্রস্তুত নয় এই দুই প্রদেশের সরকার৷

এই গণভোটের রায় কার্যকর হলে আরও ক্ষমতা পাবে লোম্বারদিয়ী ও ভেনেতো প্রদেশের সরকার। অন্যদিকে ইতালির অন্যান্য অঞ্চল সেই সমৃদ্ধি থেকে অনেকটা বঞ্চিত হবে৷ দেশের উত্তরাঞ্চলে ক্ষমতাসীন দক্ষিণপন্থি পপুলিস্ট ‘লেগা নর্দ’দল বেশ কিছুকাল ধরে বিচ্ছিন্নতাবাদের উদ্যোগ নিয়ে আসছে৷তবে পুরোপুরি স্বাধীনতার দাবি থেকে সরে এসে তারা আপাতত স্বায়ত্তশাসনের অধিকার পেতে উৎসাহী৷গণভোটের রায়কে হাতিয়ার করে এই দল ফেডারেল সরকারের সঙ্গে আরও জোরালোভাবে দরকষাকষি করবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷

উত্তরের দুই রাজ্য শেষ পর্যন্ত স্বায়ত্তশাসনের অধিকার আদায় করতে পারলে ইতালির সংবিধান সংশোধনের জন্য চাপ আরও বাড়তে পারে বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!