আলোচনার টেবিলে মেসির বাবা বার্সেলোনার সঙ্গে

ক্রীড়া ডেস্ক: লিওনেল মেসির সঙ্গে কয়েকবার আলোচনার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে বার্সেলোনা। পড়ে কাতালান ক্লাবের সঙ্গে আলোচনা করতে চাইলে সাড়া পাননি আর্জেন্টাইন তারকা। এমতাবস্থায় আর্জেন্টিনা থেকে উড়ে এসেছেন মেসির এজেন্ট ও বাবা হোর্হে মেসি। আজই বার্তোমেউয়ের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসবেন তিনি।
মেসিকে কোনোভাবেই ছাড়তে চায় না বার্সেলোনা। সময়ের সেরা এই ফুটবলারের সঙ্গে ২০২২ সাল পর্যন্ত চুক্তির মেয়াদ বাড়াতে চায় তারা। অন্যদিকে চুক্তির এখনো এক বছর বাকি থাকলেও এখনই দল ছাড়তে চান লিও।
স্পেনের এল প্রাট বিমানবন্দরে হোর্হে মেসি পৌঁছালে তাকে ঘিরে ধরেন সাংবাদিকরা। তবে তিনি শুধু একটি কথাই বলেছেন, ‘বন্ধুরা, আমি কিছুই জানি না।’
এদিকে সোমবার রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে প্রাক-মৌসুম অনুশীলনের প্রথম দিনে রিপোর্ট করেননি মেসি। এর আগেরদিন দলের সবার কোভিড-১৯ টেস্ট করা হয়। সেখানেও অনুপস্থিত ছিলেন বার্সা অধিনায়ক।
মূলত রিলিজ ক্লজ নিয়েই সমস্যা বেঁধেছে। বার্সেলোনার দাবি, মেসি ক্লাব ছাড়তে চাইলে তাকে বাই আউট ক্লজের ৭০০ মিলিয়ন ইউরো দিতে হবে। অন্যদিকে মেসির দাবি, শর্ত অনুযায়ী তিনি ফ্রি-তে যেকোনো ক্লাবে যেতে পারবেন।
২০১৭ সালে মেসির সঙ্গে শেষবারের মতো চুক্তি নবায়ন করেছিল বার্সা। সেসময় শর্ত ছিল, তিনি চাইলে প্রতি মৌসুম শেষেই ক্লাব ছাড়তে পারবেন। তবে এ ইচ্ছাটা মৌসুম শেষ হওয়ার ২০ দিন আগে জানাতে হবে। সেটা না করলে নতুন মৌসুমের জন্য ফের কাতালান ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হবেন আর্জেন্টাইন তারকা।
নতুন মৌসুমের আগে ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে মেসি দাবি করেছেন, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এই মৌসুম শেষের সময়সীমা পিছিয়ে গেছে। ৩১ আগস্ট চলতি মৌসুম শেষ হয়েছে এবং এর আগেই তিনি ক্লাব ছাড়ার কথা জানিয়েছেন। কিন্তু তার দাবি উড়িয়ে দিয়েছে বার্সা ম্যানেজমেন্ট। কাতালান ক্লাবের দাবি, গত জুনেই মেসির ক্লাব ছাড়ার আবেদনের সময়সীমা পেরিয়েছে।
দুই পক্ষ শেষ পর্যন্ত কোনো মীমাংসায় না এলে বিষয়টি গড়াতে পারে আদালত পর্যন্ত। তবে এতদূর না গিয়ে সুষ্ঠুভাবে সবকিছুর সমাধান হবে এমন প্রত্যাশা করছেন ভক্তরা।